মুম্বই: কমে যাচ্ছে হাওয়ার গতিবেগ। নিসর্গের তাণ্ডব থেকে মুক্তি পেতে চলেছে মুম্বই। ‌বুধবার দুপুর ১ টায় আছড়ে পড়ে সেই ঝড়। এরপর গতি কমতে শুরু করেছে বলে জানা গিয়েছে।

মনে করা হচ্ছে, এবারের মত কোনোক্রমে রক্ষা পেয়ে গেল মুম্বই। বাণিজ্য নগরীতে তেমন কোনও ক্ষতি হয়নি এখনও পর্যন্ত। যদিও সন্ধে ৭ টা পর্যন্ত বিমান পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। জারি রয়েছে হাই অ্যালার্ট।

মুম্বই থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে আলিবাগে আছড়ে পড়ে এই ঝড়। হাওয়ার প্রবল বেগে গাছ উপড়ে যায়। আলিবাগে ৯৩ কিমি প্রতি ঘণ্টা বেগে হাওয়া বইছিল সেইসময়। বন্ধ হবে যায় রাস্তা।

আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই গতিবেগ কমে যাবে।

আলিবাগের দক্ষিণ দিক দিয়ে এটি যাবে বলে আগেই জানিয়েছিলেন আবহাওয়াবিদরা। গতি হবে সর্বোচ্চ ১২০ কিলোমিটার। এটি লেভেল ২এর ঘূর্ণিঝড় বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস।

আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে প্রকাশ্যে মানুষের চলাচলে বিধিনিষেধ জারি করে মুম্বই। মুম্বই উপকূলের তীরবর্তী সমুদ্র সৈকত, পার্ক এরকম খোলা জায়গায় বেরোনোর ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। গুজরাত, দমন-দিউ, দাদরা নগর হাভেলি এই সমস্ত জায়গায় ঝড়ের কারণে হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার থেকেই ঝড়ে ক্ষতির আশঙ্কায় উপকূলবর্তী এলাকা থেকে সরানো হচ্ছে মানুষজনকে। মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের তরফে বলা হয়েছে, “মুম্বই শহরে বাস করা বস্তিবাসীদের, বিশেষ করে নিচু এলাকার বাসিন্দাদের অন্যত্র সরানো হয়েছে”।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব