মুম্বই: দেশ জুড়ে এই মুহূর্তে করোনা ভাইরসে মহামারী নিয়ে আতঙ্কিত সকলে। কার্যত একাধিক রাজ্য এই মুহূর্তে কেন্দ্রের সঙ্গে হাত মিলিয়ে এই পরস্থিতি থেকে রেহাই পাওয়ার চেষ্টা করে চলেছে। কিন্তু তারই মধ্যে এই আনলকের প্রথম পর্যায়ের মধ্যে এক নতুন দিশা দেখল মুম্বইয়ের এক নগরবাসী। পক্সো আইনে অভিযুক্তকে এক ব্যক্তিকে শাস্তি ঘোষণা করল মুম্বই আদালত।

জানা গিয়েছে ৩০ বছর বয়সী অভিযুক্ত আদু আব্দুল রেহমান মেহাবুব লোহার এক নাবালিকাকে যৌন নির্যাতন করার অপরাধে অভিযুক্ত হয়ে বন্দি ছিল মুম্বইয়ের আরথার রোড জেলে। সেখান থেকেই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই ওই ব্যক্তির চূড়ান্ত সাজা ঘোষণা করে মুম্বই আদালত। ৫ বছরের জন্য ওই ব্যক্তিকে কারাদণ্ডের শাস্তি দেওয়া হয়।

এই মুহূর্তে মহারাষ্ট্রে সব থেকে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে করোনা ভাইরাসে। তারই মধ্যে এই সাজা ঘোষণা করে এক নয়া নজির স্থির করল মুম্বই আদালত। পুলিশের তরফে জানা গিয়েছে ২৯ জুন ২০১৮ সালের একটি ঘটনার এভাবে সাজা ঘোষণার ফলে কার্যত নয়া দিশা দেখাল মুম্বই আদালত।

আন্তোপ হিল এলাকার এক বস্তিত্র নাবালিকাকে জোর করে চুম্বন করার পরাধে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। তারপর থেকে তার বিরুদ্ধে এই কেস চলছিল। অবশেষে রায়দান করে নাবালিকা মেয়েটিকে ন্যায় প্রদান করল ওই আদালত।

ওই নাবালিকার বাবার থেকে জানা গিয়েছে ওই ব্যক্তির দুই মেয়ে স্থানীয় কমন বাথরুমে গিয়েছিল। কিন্তু সেই সময় ওই জায়গাতে কারেন্ট না থাকায় ওই ব্যক্তির বড় মেয়ে তার ছোট বোনকে মোবাইল ফোন নিয়ে আনার জন্য নিজের ঘরে পাঠায়। ওই নাবালিকার ঘরে আসার সময়ে অভিযুক্ত ব্যক্তি আচমকা ওই নাবালিকাকে নিজের কাছে টেনে তার ঠোঁটে চুম্বন করে।

ঘটনাতে চমকে গেলেও পালিয়ে নিজের ঘরে এসে সকলকে বিস্তারিত ভাবে জানায়। ওই নাবালিকার বাবা ঘটনাটি জানতে পেরে অভিযুক্তের বাড়িতে গেলে সেখানে তার স্ত্রী ছাড়া কাউকে দেখতে পাননি। সেখান থেকে স্থানীয় থানাতে গিয়ে ওই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন ওই নাবালিকার বাবা। তারপরে দীর্ঘদিন ধরে আইনি লড়াই চললেও অবশেষে ন্যায় পেলেন ওই নাবালিকা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ