মুম্বই: ২০২১ আইপিএলের জন্য আটটি ফ্র্যাঞ্চাইজির ক্রিকেটার রিটেইন প্রক্রিয়ার শেষদিন ছিল বুধবার। এদিন বেশ কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে কয়েকজন এমন ক্রিকেটারের মধুচন্দ্রিমা শেষ হল, যা অবাক করেছে ক্রিকেট অনুরাগীদের। তালিকায় রয়েছেন রাজস্থান রয়্যালসের স্টিভ স্মিথ, কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। তবে তালিকায় সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য নামটা অবশ্যই লাসিথ মালিঙ্গা। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের সঙ্গে দীর্ঘ ১২ বছরের সম্পর্ক শেষ হল আইপিএলের সর্বাধিক উইকেট শিকারির।

এক বিবৃতির মাধ্যমে আইপিএলে দেড়শোরও বেশি উইকেট নেওয়া সিংহলী পেসারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার বিষয়টি ঘোষণ করেছে বাণিজ্য নগরীর ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের জার্সি গায়ে কোটিপতি লিগে ১২২ ম্যাচে ১৭০টি উইকেট রয়েছে ‘স্লিংগা’ মালিঙ্গার ঝুলিতে। সেরা বোলিং ফিগার ১৩ রানে ৫ উইকেট। মুম্বই ইন্ডিয়ান্স বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘মুম্বই যে সাতজন ক্রিকেটারকে ছেড়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে তাঁদের মধ্যে রয়েছেন শ্রীলঙ্কা কিংবদন্তি লাসিথ মালিঙ্গা, কিউয়ি জোরে বোলার মিচেল ম্যাকলেনাঘান, অস্ট্রেলিয়ার ন্যাথান কুল্টার-নাইল এবং জেমস প্যাটিনসন, গায়ানার শেরফেন রাদারফোর্ড, আনক্যাপড লেগ-স্পিনার প্রিন্স বলবন্ত রাই এবং জোরে বোলার দিগ্বিজয় দেশমুখ।’

তবে গত মরশুমে অজি বিগ হিটার ক্রিস লিনকে দলে নিয়ে না খেলালেও তাঁকে ধরে রাখছে রোহিতের দল। উল্লেখ্য, ২০২০ আইপিএলে লাসিথ মালিঙ্গার পরিবর্ত হিসেবে অজি স্পিডস্টার জেমস প্যাটিনসনকে দলে নিয়েছিল মুম্বই ফ্র্যাঞ্চাইজি। ব্যক্তিগত কারণে গত সেপ্টেম্বরে মরুশহরে অনুষ্ঠিত হওয়া কোটিপতি লিগ থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন মালিঙ্গা। অধিনায়ক রোহিত শর্মা ছাড়াও মুম্বইয়ের রিটেইন করা ১৮ জন ক্রিকেটারদের তালিকায় রয়েছে কুইন্টন ডি’কক, জসপ্রীত বুমরাহ, ট্রেন্ট বোল্ট, কায়রন পোলার্ড, পান্ডিয়া ব্রাদার্সদের মত নাম। আসন্ন নিলামে বিদেশি কোটায় বরাদ্দ বাকি চার ক্রিকেটার নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

একনজরে দেখে নেওয়া যাক মুম্বই ইন্ডিয়ান্স কোন কোন ক্রিকেটারকে ধরে রাখল-

ব্যাটার: রোহিত শর্মা, কুইন্টন ডি’কক (উইকেটরক্ষক), সূর্যকুমার যাদব, ইশান কিষাণ (উইকেটরক্ষক), ক্রিস লিন, আনমোলপ্রীত সিং, সৌরভ তিওয়ারি, আদিত্য তারে (উইকেটরক্ষক)।

বোলার: জসপ্রীত বুমরাহ, ট্রেন্ট বোল্ট, রাহুল চাহার, জয়ন্ত যাদব, ধবল কুলকার্নি, মহসিন খান

অলরাউন্ডার: কায়রন পোলার্ড, হার্দিক পান্ডিয়া, ক্রুনাল পান্ডিয়া, অনুকূল রায়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।