মুম্বইঃ দেশের মধ্যে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরসে আক্রান্ত বেশি মহারাষ্ট্রে। তবে মুম্বইয়ের এক হাসপাতালে তিনজন ডাক্তার সহ ২৬ জন নার্সের শরীরে করোনা ভাইরসে সংক্রমণের কারণে বন্ধ রাখা হল একটি হাসপাতাল। মুম্বইয়ের ওই হাসপাতালে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা চলছিল। কোনভাবে সেখান থেকে চিকিৎসক সহ নার্স সংক্রমিত হয়ে পরেছিল। যা আবারও সামনে আনল স্বাস্থ্য কর্মীদের সুরক্ষার বিষয়টি। নিরাপত্তার কারনেই বন্ধ রাখা হয়েছে ওই হাসপাতাল।

ওই হাসপাতালের নাম অকহার্ড হাসপাতাল। সরকারি হাসপাতালের তালিকাতে ওই হাসপাতালের নাম রয়েছে। কিভাবে ওই হাসপাতালে এতজন আক্তান্ত হলেন তা খতিয়ে দেখার জন্য তদন্ত শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে। পাশপাশি ডাক্তারেরা নিজেরাই আক্রান্ত হওয়াতে স্বাভাবিক ভাবে আতঙ্কিত সাধারণ মানুষজন। জানা গিয়েছে যতক্ষণ না ওখানে থাকা রোগীদের শরীরে পরীক্ষার ফল নেগেটিভ আসছে ততক্ষন বন্ধ রাখা হবে ওই হাসপাতাল। অর্থাৎ কেউ ঢুকতে বা বেরতে পারবেন না।

রবিবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছিল ক্রমেই ভারতে ছড়াচ্ছে এই ভাইরাস। সেই কারণে বেশ কিছু জায়গা শিল করার কথা ভাবা হচ্ছে। যাতে সংক্রমণকে আটকানো যায়। তবে পরিস্থিতির দিকে প্রশাসনের নজর রয়েছে। গত ডিসেম্বরে চিন থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পরেছিল গোটা বিশ্বে। যার জেরে প্রথম সারির দেশগুলি কার্যত বন্দি। একাধিক দেশে ক্রমেই বেড়ে চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা।

পাশপাশি থমকে নেই মৃতের হারও। ভাইরসের প্রভাব পড়েছে ভারতেও। ইতিমধ্যে ভারতেও আক্রান্তের সংখ্যা পেরিয়ে গিয়েছে চার হাজার। পাশপাশি মারা গিয়েছেন একশো জনের বেশি। দেশের মধ্যে সব থেকে আক্রান্ত মহারাষ্ট্র। তারপরে তামিলনাড়ু এবং কেরলে। মুম্বইতে আক্রান্ত হয়েছে চারশোর বেশি মানুষ। এছাড়া মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা আটশোর কাছাকাছি। মুম্বইয়ের ধারাভিতেও পাওয়া গেছে করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির খোঁজ। যার জেরে জটিল পরস্থিতি বাণিজ্য নগরীতে।