প্রতীকি ছবি

মুম্বই: চিকিৎসা করাতে গিয়ে ডাক্তারের সাথে আলাপ৷ সেখান থেকে বন্ধুত্ব৷ আর সেই বন্ধুত্বের সুযোগে ধর্ষণ৷ ৫৫ বছর বয়সী একটি চিকিৎসকের বিরুদ্ধে এমনই গুরুতর অভিযোগ আনলেন মডেল ও উঠতি অভিনেত্রী৷

২১ বছরের ওই মডেলের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিশ৷ সর্বাধিক প্রচারিত একটি দৈনিক খবরের কাগজ অনুযায়ী, মডেলের এক বন্ধু তাঁকে ওই চিকিৎসকের নাম সুপারিশ করে৷ বন্ধুর কথা মতো সেখানে চিকিৎসা করাতে যান ওই মডেল৷ আস্তে আস্তে দু’জনে ভালো বন্ধু হয়ে ওঠেন৷

কিন্তু এই বন্ধুত্বের সুযোগে ওই মডেলকে ধর্ষণ করে ওই চিকিৎসক৷ এমনকী মডেলের আপত্তিজনক বেশ কিছু ছবিও মোবাইলে তুলে রাখে৷ তাঁকে ভয় দেখায়৷ জানায় পুলিশের কাছে মুখ খুললে এই ছবি ফাঁস করে দেওয়া হবে৷ দিনের পর দিন এই ভয় দেখিয়ে ব্ল্যাকমেলিং করা হয়৷

অবশেষে সাহস করে ওই তরুণী পুলিশের কাছে অভিযোগ জানান৷ যার ভিত্তিতে অভিযুক্তকে চেম্বুর থেকে গ্রেফতার করা হয়৷ ধর্ষণ ছাড়াও ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয়৷ গ্রেফতারের পর অভিযুক্তকে আদালতে তোলা হলে ১০ মে অবধি তাকে পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন বিচারপতি৷

ইতিমধ্যে ওই চিকিৎসকে জেরা করা হয়েছে৷ প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে ভারসোভাতে ওই মহিলার জন্য বাড়ি ভাড়া নেয় অভিযুক্ত চিকিৎসক৷ এমনকী ওই মডেলের অ্যাকাউন্টে টাকাও পাঠান৷ কী কারণে অভিযুক্ত বাড়ি ভাড়া নেয় এবং কেনই বা সে টাকা পাঠাতো ইত্যাদি প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে চলছে জিজ্ঞাসাবাদ৷