মু্ম্বই: মুম্বইয়ের ক্লাবের ক্রিকেটার করণ তিওয়ারি আইপিএল ২০২০-এর জন্য নির্বাচিত না-হওয়ায় চরম হতাশায় ভুগছিলেন৷ সোমবার রাতে মালাডে তাঁর বাসভবনে ২৭ বছর বয়সি এই ক্রিকেটারের মৃতদেহ উদ্ধার হয়৷

দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার ডেল স্টেইনের সঙ্গে বোলিং অ্যাকশনের সঙ্গে মিল থাকার কারণে মুম্বইয়ের ক্লাব ক্রিকেটে “জুনিয়র স্টেইন” হিসাবে পরিচিত ছিলেন করণ৷ কিন্তু এর মধ্যেই থেমে গেল তাঁর বড় ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন৷ সুযোগ না-মেলায় অবসাদে ভুগছিলেন করণ৷ শেষ পর্যন্ত ঘরে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় তাঁকে৷

প্রাথমিক ভাবে পুলিশ মনে করছে, অবসাদগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যা করেছেন করণ। যদিও তাঁর বাড়ি থেকে কোনও সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়নি। পুলিশ জানিয়েছে, মুম্বইয়ের কুরার এলাকায় মা ও ভাইয়ের সঙ্গে থাকতেন করণ। সম্প্রতি উদয়পুরে এক বন্ধুকে ফোন করে আইপিএলে সুযোগ না-পাওয়ার হতাশার কথা জানিয়েছিলেন৷ আত্মহত্যার আশঙ্কা করে ওই বন্ধু রাজস্থানে করণের বোনকে পুরো ঘটনাটি জানান। বোনের কাছ থেকে জানতে পারেন করণের মা। তবে ততক্ষণে দেরি হয়ে গিয়েছিল। রাতে খাবারের পর ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয় করণ। যতক্ষণে দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকা হয়, করণ নিজেকে শেষ করে দিয়েছিল।’

মুম্বই পুলিশ ঘটনার পরে দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু রিপোর্ট (এডিআর) নথিভুক্ত করেছে। কুরার থানার সিনিয়র পুলিশ অফিসার বাবাসাহেব সালুঙ্খে বলেন, ‘আমরা একটি এডিআর নিবন্ধ করেছি এবং তদন্ত চলছে।’

বিসিসিআই-এর নিয়ম অনুসারে, যদি কোনও খেলোয়াড় রাজ্য দলের প্রতিনিধিত্ব করেন তবে তিনি আইপিএল নিলামে অংশ নিতে পারবেন। তবে রাজ্যস্তরে না-খেললেও মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হোম গ্রাউন্ড, ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে করণে আইপিএল দলগুলিকে বোলিংয়ের অভিজ্ঞতা ছিল।

করণের ঘনিষ্ঠ বন্ধু অভিনেতা জিতু ভার্মা বলেন, ‘বহু বছর ধরেই ভালো টিমে জায়গার সুযোগ খুচ্ছিলেন করণ। কোনও রাজ্য দলের জন্য নির্বাচিত হওয়ার আশা করেছিল। এ নিয়ে কয়েকজনের সঙ্গে ওর আলোচনায় হয়েছিল৷’ নিজেকে শেষ করে দেওয়া এই ক্রিকেটার বোলিং এবং ব্যাটিংয়ের ভিডিওগুলি তাঁর শেষ হোয়াটসঅ্যাপ স্ট্যাটাসে আপলোড করেছিলেন।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও