নয়াদিল্লি: অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলার তদন্তে মুম্বই পুলিশ রিয়া চক্রবর্তীকে সাহায্য করছেন, সুপ্রিম কোর্টকে চিঠিতে ঠিক এমন অভিযোগ জানিয়েছে বিহার পুলিশ।

জানানও হয়েছে, “রিয়া চক্রবর্তী কোনও প্রমাণ দেননি যে পাটনা পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে পাক্ষিকতা দেখাচ্ছে”। তদন্ত বিহার থেকে পাটনা নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে যে পিটিশন জমা করা হয়েছে সে বিষয়ে মুখ খুলেছে বিহার পুলিশ।

উল্লেখ্য, ৫ অগাস্ট সুশান্ত সিং রাজপুতের তদন্ত ভার তুলে দেওয়া হল সিবিআই-এর হাতে। মঙ্গলবার কেন্দ্রের কাছে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার আবেদন করেছিলেন, এই তদন্ত সিবিআই এর হাতে তুলে দেওয়া হোক। সেই ভিত্তিতেই সিবিআই এই ঘটনার দায়িত্ব নিয়েছে। শুক্রবার ইডি-র ডাকে সারা দিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পৌঁছে গিয়েছেন অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী।

সুশান্তের জামাইবাবু তথা হরিয়ানা পুলিশের কর্মী ওপি সিং কে হোয়াটসঅ্যাপে লিখেছিলেন, “আমি বিভিন্ন জায়গা থেকে জানতে পেরেছি যে সুশান্তকে বাঁচানোর জন্য আমাদের কাছে বেশি সময় নেই। রিয়া নামের মেয়েটি মিরান্ডা ও শ্রুতিকে কাজে লাগিয়ে সুশান্তকে আর্থিক, মানসিক এবং শারীরিক দিক থেকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করেছে।” এই বার্তাটিও বান্দ্রার ডিসিপিকে ফরওয়ার্ড করা হয়েছিল।

এদিকে ইডির দফতরে হাজির হয়ে বয়ান রেকর্ডের জন্য আরও বেশ কয়েকদিন সময় চেয়ে আবেদন করেন রিয়া চক্রবর্তী। কিন্তু রিয়ার সেই আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের তরফে। অর্থাত ইডির জারি করা নির্দিষ্ট দিনেই রিয়াকে সেখানে হাজির হয়ে বয়ান রেকর্ড করাতে হবে বলে স্পষ্ট জানানো হয়। শুধু তাই নয়, রিয়া যদি এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের দফতরে হাজির না হন, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে হাজিরা দিতে অসমর্থ হওয়ার অভিযোগ দায়ের করা হবে বলে জানানো হয়েছে। এরপরই ভাইয়ের সঙ্গে এডির দফতরে হাজির হন অভিনেত্রী।

প্রসঙ্গত, সুশান্তের বাবা কে কে সিং অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে রাজীব নগর থানায় এফআইআর দায়ের করেন। তার পরেই বিহার পুলিশ তদন্তে নামে। এরই মধ্যে রিয়াও সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করেছিল ঘটনার তদন্ত বিহার থেকে মুম্বইয়ে স্থানান্তরিত করা হোক। এরও শুনানি হওয়ার কথা ছিল আজ বুধবার। সুপ্রিম কোর্ট আগামী তিন দিনের মধ্যে সমস্ত পার্টিকে এর উত্তর জানাতে বলেছে। তার উপর ভিত্তির করে শুনানি হবে এক সপ্তাহ পরে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা