নয়াদিল্লি: আর্থিক সংকটে মোদীর স্বপ্নের বুলেট ট্রেন প্রকল্প কারণ জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) রাজি নয় আর কোনও অর্থ দিতে ৷ জাপানের এই আর্থিক সংস্থা আগে কেন্দ্রীয় সরকারকে কৃষকদের প্রতিবাদ আন্দোলন থামাতে বলেছে৷ ফলে কেন্দ্র বাধ্য হয়েছে বিকল্প তহবিল খুঁজতে বিশেষ কমিটি গড়েছে৷

এই দ্রুত রেল প্রকল্পরে খরচ যেখানে ধরা হয়েছিল এক লক্ষ কোটি টাকা সেখানে জাইকা ৮০,০০০ কোটি টাকা দিতে রাজি হয়েছিল৷ এতদিনে ১২৫ কোটি টাকা দিয়েছে ৷ বিভিন্ন ইস্যুর কারণে এই প্রকল্প এমনিতেই দেরিতে চলছে এবং সময়সীমা দুবছর বাড়ানো হয়েছে৷

মুম্বই-আমেদাবাদ বুলেট ট্রেন প্রকল্পটি সম্প্রতি ধাক্কা খেয়েছে একদল কৃষক গুজরাট হাইকোর্টে জমি অধিগ্রহণের বিরোধিতা করে মামলা করায় ৷ তাছাড়া এই চাষির দল জাইকাকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে এই সরকার সামাজিক এবং পরিবেশগত বিষয়গুলিকে অগ্রাহ্য করে জমি অধিগ্রহণ করছে৷

ওই চিঠিতে চাষিরা এই আর্থিক সংস্থাকে অনুরোধ করেছে যেন তারা এই ভারত সরকারকে দেওয়া কিস্তি আপাতত দেওয়া বন্ধ রাখে৷ পাশাপাশি এই বিষয়ে গাইডলাইন তৈরি করা এবং জাপানের রাষ্ট্রদূতকে গুজরাটে আসার জন্য অনুরোধ করেছে৷ সূ্ত্রের খবর তারপরেই জাইকা তাদের কিস্তি বন্ধ করেছে৷

এই পরিস্থতিতে পিএমও থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিশেষ কমিটি গঠন করে বিষয়টি দেখার জন্য৷ ওই কমিটিতে নীতিআয়োগ, অর্থমন্ত্রক গুজরাটএবং কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিনিধিরা রয়েছেন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।