লখনউ: অসুস্থ মুলায়ম সিং যাদব৷ ভরতি হাসপাতালে৷ শুক্রবার সকালেই তাঁকে লখনউয়ের একটি হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভরতি করা হয়৷ তবে ঠিক কি কারণে তাঁকে ভরতি হতে হল, তা এখনও জানা যায়নি৷ তবে তাঁর শারীরিক অবস্থা খতিয়ে দেখার জন্য একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে৷

দিনকয়েক আগেই মুলায়ম সিংকে মঞ্চে দেখা যায়৷ পুরোন বিবাদ ভুলে মায়াবতীকে পাশে নিয়ে বক্তব্যও রাখেন তিনি৷ গত সপ্তাহে তাঁর কেন্দ্র মইনপুরীতে একটি যৌথ মিছিল করে সপা বসপা৷ সেখানে উপস্থিত ছিলেন মুলায়ম৷

১৯৯৫ সালের পর মুলায়ম মায়াবতীকে একসঙ্গে দেখা যায়নি৷ সাইকেলের সওয়ারি মুলায়মের হয়ে ভোট চাইছেন হাতির চালক মায়াবতী৷ উলটে দেখা গিয়েছে উলটো ছবি৷ কিন্তু রাজনীতিতে সবই সম্ভব৷ তারই বাস্তব রূপ মইনপুরীতে আরও একবার দেখা গিয়েছিল৷

এদিন এদিন প্রচারের শুরুতেই ভাষণ দেন সপার প্রাক্তন প্রধান ও নেতাজী মুলায়ম সিং যাদব৷ তিনি বলেন, ‘‘মায়াবতীজীকে অনেক ধন্যবাদ এই সভায় যোগ দেওয়ার জন্য৷ সময়ের দাবি মেনে উনি সপার হাত ধরেছেন৷ ওনার কাছে আমি কৃতজ্ঞ৷’’ প্রচারে বক্তব্য রাখার সময় আবেগতাড়িত ছিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী৷ বলেন, ‘‘শেষবার আমি ভোটে লড়ছি৷ আমার প্রার্থনা থাকবে বেশি ভোটের ব্যবধানে আমাকে জেতান আপনারা৷’’ অপোক্ত শরীরে স্বল্প ভাষণেই ভোটারদের কাছে নিজের কথা তুলে ধরেন মুলায়ম সিং যাদব৷

আরও পড়ুন : ঐক্য প্রদর্শনে মোদীর মনোনয়নে হাজির এনডিএের শরিক নেতারা

নেতাজীর পরই মঞ্চে ভাষণ দিতে ওঠেন মায়াবতী৷ বিজেপিকে আক্রমণের সঙ্গেই বহেনজীর নিশানায় ছিল কংগ্রেসও৷ সপা-বসপা জোটের প্রয়োজনীতার কথা ভরা জনসভায় তুলে ধরেন তিনি৷ জানান, ‘‘মানুষ ও দেশের স্বার্থে কখনও কখনও কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়৷ এই সিদ্ধান্তের ভিত্তিতেই আগামীর পথ চলতে হয়৷ তাই সপা-বসপা জোট গড়তে হয়েছে৷’’ ভূয়সী প্রশংসা করেন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও একদা শত্রু মুলায়ম সিং যাদবের৷

রাজনৈতিক মহলের মতে, সপা-বসপার প্রধান ভোট ব্যাংক পিছিয়ে পড়া জনজাতি৷ কংগ্রেসের বিরোধিতা করে যা অটুট রাখতে চাইছেন মায়াবতী৷ অন্যদিকে, মোদী সরকারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে বোঝানোর চেষ্টা করছেন উত্তরপ্রদেশে গেরুয়া শিবিরের বিকল্প মায়া-অখিলেশ জোট৷

মোদী বিরোধিতায় সরব বিরোধী রাজনৈতিক শিবির৷ দিল্লির মসনদে পরিবর্তনের স্লোগান তাদের মুখে৷ সেই পরিবর্তনের সাপেক্ষেই ২৪ বছর পর মায়া-মুলায়ম পাশাপাশি৷ উত্তরপ্রদেশের রাজনীতিতে কী তবে বদলের ইঙ্গিত? উত্তর লুকিয়ে সময়ের গর্ভেই৷