ফাইল ছবি। ঘটনার সঙ্গে কোনও যোগ নেই।

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: এনআরসি ইস্যুতে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে মুকুল রায়ের বিরোধ স্পষ্ট হল৷ তারাপীঠে পুজো দিয়ে বিজেপি নেতা দাবি করলেন, ‘‘এ রাজ্যে এনআরসি হচ্ছেই না। সিএএ-তে একজনের নাম বাদ যাবে না। যারা অপপ্রচার করছেন, তাঁরা ভুল করছেন।’’

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে উত্তাল গোটা দেশ। বিভিন্ন রাজ্যে এ নিয়ে লাগাতার বিক্ষোভ চলেছে। বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশে বিক্ষোভ ঘিরে বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে রামলীলা ময়দানের সভায় মোদী বলেন, এনআরসি নিয়ে কোনও আলোচনাই হয়নি। যদি এনআরসি নিয়ে আলোচনাই না হয়ে থাকে তাহলে কেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বারবার এনআরসির হয়ে সওয়াল করেছেন, সে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে।

বাংলায় এনআরসির হয়ে সওয়াল করতে একাধিকবার দেখা গিয়েছে দিলীপ ঘোষকে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেছিলেন, ‘‘আমি চাই বাংলায় এনআরসি হোক। অসমে যদি হয় তাহলে বাংলাতেও এনআরসি কেন হবে না? এখানে সবচেয়ে বেশি অনুপ্রবেশ হয়েছে। যদি ৩৭০ হতে পারে, তাহলে এনআরসিও হবে৷ ’’।

কিন্তু মুকুল রায়ের মুখে শোনা গেল অন্য কথা৷ তিনি বললেন, ‘যারা অপপ্রচার করছেন, তারা ভুল করছেন। স্বাভাবিকভাবেই এটা বলার কোনও প্রশ্ন নেই। এটা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন। সুপ্রিম কোর্ট এই রায়ে মান্যতা দিয়েছে। এবং দেশের সর্বোচ্চ আদালত কোনও স্থগিতাদেশ দেয়নি। এনআরসি হবে এমন কথা অমিত শাহ কোথাও বলছেন না। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় এনআরসি নিয়ে কখনও কোনও আলোচনা হয়নি। যা হয়েছে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে। তাতে একজন ভারতবাসীর নাগরিকত্ব যাবে না। বরং আরও কিছু মানুষ যারা পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্তানের সংখ্যালঘুরা অত্যাচারিত হয়ে এদেশে আসবেন তাদের সকলকে এ দেশের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।’এ ইস্যুতে মুকুলের মন্তব্য রাজনৈতিকভাবে তাৎপর্যপূর্ণ বলেই ব্যাখ্যা পর্যবেক্ষকদের একাংশের।