কলকাতাঃ  সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে ভাটপাড়ায় হিংসা অব্যাহত৷ একাধিকবার বোমাবাজির ঘটনায় বার বার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে ভাটপাড়া৷ ধুন্ধুমার কাণ্ড ফের সেই ভাটপাড়াতেই৷ থানা উদ্বোধনের দিন সকাল থেকে বোমা, গুলিতে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়েছে ভাটপাড়া৷ দুজনের মৃত্যুর খবরও পাওয়া গিয়েছে৷ জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছে যায় যে নবান্নে জরুরি বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

বৈঠকে রং না দেখে পুলিশ প্রশাসনকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী তিনদিনের মধ্যে ভাটপাড়য় শান্তি ফেরানোর জন্যে পুলিশ প্রশাসনকে কড়া নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একদিকে যখন এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত রাজ্য-রাজনীতি তখন এই ঘটনার জন্যে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দায়ী করলেন মুকুল রায়।

তৃণমূলের এই প্রাক্তন চাণক্যের দাবি, ভাটপাড়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই গুলি চালিয়েছেন পুলিশ। এই ঘটনার জন্যে পূর্ণাঙ্গ তদন্তেরও দাবি তুলেছেন তিনি। মুকুলের রায়ের মতে, খেটে খাওয়া মানুষকে হত্যা করেছে। পুলিশের গুলিতে কতজন মানুষ আশঙ্কাজনক। তাঁরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আর এর সমস্ত দায়িত্ব বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই নিতে হবে বলে দাবি করেছেন মুকুল রায়।

শুধু তাই নয়, বিজেপি নেতার দাবি, নিরীহদের উপরে কেন গুলি চালানো হল, তার জবাব দিতে হবে মুখ্যমন্ত্রী। উনি হার মেনে নিতে পারছেন না। আর সে কারণে পুলিশকে ব্যবহার করে ভাটপাড়ার দখল মমতা নিতে চাইছে। আর তা বাংলার মানুষ কখনই মেনে নেবে না বলে মনে করেন মুকুল রায়।

রসঙ্গত, কাঁকিনাড়ায় থানার উদ্বোধনের দিনই এই বোমাবাজির ঘটনা ঘটে৷ মৃত্যু হয় দুই ব্যক্তির৷ গুরুতর জখম হয় সাত৷ সকাল থেকে ভাটপাড়ায় এই রণক্ষেত্র চেহারা ঘিরে সৃষ্টি হয় আতঙ্ক৷ ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনি এবং কমব্যাট ফোর্স গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে। জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তিদের নাম রামবাবু সাউ এবং সন্তোষ সাউ৷ আজ বৃহস্পতিবার ভাটপাড়ায় নতুন থানা উদ্বোধনের কথা ছিল৷ আর তার আগেই সকাল থেকে শুরু হয় ব্যাপক বোমাবাজি৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে শূন্যে ১০ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে পুলিশ৷ তবে পুলিশ নাকি দুষ্কৃতীদের গুলিতে মৃত্য়ু হয়েছে ওই দুই ব্যক্তির তা এখনও সঠিকভাবে জানা যায়নি৷ তবে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি ৭ থেকে ৮ জন মানুষ। তবে সংখ্যা নিয়ে এখনও ধোঁয়াশা রয়েছে।