স্টাফ রিপোর্টার, পাঁশকুড়া: পুরুলিয়া, বর্ধমান, পশ্চিম মেদিনীপুরের পর এবার পূর্ব মেদিনীপুর৷ মুকুল রায়ের পোস্টারকে ঘিরে এবার চাঞ্চল্য তৈরি হল অধিকারী গড় হিসেবে পরিচিত পূর্ব মেদিনীপুরে৷ ‘এলাকার সমস্ত নাগরিকবৃন্দকে জানাই জগদ্ধাত্রী পুজো ও ছট পুজোর গৈরিক অভিনন্দন’৷ পাঁশকুড়ার মেচোগ্রাম মোড়ে মুকুল রায়ের ছবি সহ এহেন পোস্টারকে ঘিরে ব্যাপক রাজনৈতিক উত্তেজনা তৈরি হয়েছে৷ পোস্টারে লেখা ‘গৈরিক অভিনন্দন’ থেকে স্থানীয় ওয়াকিবহাল মহলের অভিমত, বিজেপিতেই যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলের এক সময়ের ‘সেকেন্ড ইন কম্যান্ড’৷

এদিন মেচোগ্রাম মোড় সহ পাঁশকুড়া বিডিও অফিসের সামনে মুকুল রায়ের শুভেচ্ছা বার্তার হোডিং দেখা গেল। তবে কে বা কারা এই ধরনের হোডিং টাঙিয়েছে তা স্পষ্ট নয়৷ তবে মুকুল রায়ের এই ধরণের হোডিং দেখে পাঁশকুড়ায় নতুন করে রাজনৈতিক বাতাবরণ তৈরি হচ্ছে বলে মনে করছেন এলাকার সাধারন মানুষ।

প্রসঙ্গত, পাঁশকুড়া পুরসভা তৃণমূলের দখলে থাকলেও চেয়ারম্যান নিয়ে সমস্যা অব্যহত। পাঁশকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যান হিসাবে আনিসুর রহমান পদে বসেন। কিন্তু দলীয় নিয়ম না মেনে আনিসুর রহমান চেয়ারম্যানের পদে বসায় দল তাঁকে বহিষ্কার করেছিল। বহিস্কারের ১ মাসের মাথায় পদত্যাগ করেন পাঁশকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান। তার পর নতুন করে চেয়ারম্যান পদে কেউ বসেনি এখনও। পাঁশকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ আর পাঁশকুড়ায় মুকুল রায়ের হোডিং যা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে পাঁশকুড়ায়।

তবে কি আনিসুর রহমানের শিবিরের লোকেরা মুকুল রায়ের সঙ্গে যাচ্ছে৷ মুকুল রায়ের পোস্টার পড়ার পর থেকেই এই জল্পনা তৈরি হয়েছে৷ যদিও এবিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি আনিসুর৷ তবে মুকুল রায় বিজেপিতে নাম লেখালে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের একটি বড় অংশ তাঁর সঙ্গে যাবে বলেই মনে করছেন এলাকার ওয়াকিবহাল মহল৷ ওই মহলের মতে, ইতিমধ্যেই গোপনে মুকুল রায়ের সঙ্গে যোগাযোগও রাখছেন দলের একাংশ৷