কলকাতা: মেটিয়াবুরুজে আরএসএস কর্মীকে লক্ষ্য করে গুলি, আর সেই ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবারও দফায় দফায় উত্তপ্ত শহর কলকাতা। ঘটনার প্রতিবাদে এদিন বিজেপির তরফে সেখানে একটি প্রতিবাদ সভার ডাক দিয়েছিল৷ আর সেখানে যাওয়া পথে আটকানো হল বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে৷ তার সঙ্গে ছিলেন, বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা ও সব্যসাচী দত্ত৷ তাঁদেরকেও আটকানো হয় বলে অভিযোগ। পুলিশের বিরুদ্ধে তাঁদের পথ আটকানোর অভিযোগ, মুকুল রায়ের।

অন্যদিকে, বাধা পেয়ে খিদিরপুরের রাস্তার মাঝেই তারা প্রতিবাদ করেন৷ অন্যদিকে ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে চলে আসেন তৃণমূলের কর্মী ও সমর্থকরা৷ তাদের হাতে ছিল দলীয় পতাকা৷ তারা বিজেপি নেতাদের উদ্দেশ্য গো ব্যাক স্লোগান দিতে থাকেন৷ যদিও বাধা পেয়ে কিছুক্ষন পরে মুকুল রায়,অনুপম হাজরা ও সব্যসাচী দত্তরা সেখান থেকে ফিরে আসেন বলে জানা যাচ্ছে।

মুকুল রায়ের অভিযোগ, মেটিয়াবুরুজ কাণ্ডে সেখানে একটি প্রতিবাদ সভায় যোগ দিতে যাচ্ছিলাম৷ পথে মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশেই পুলিশ আমাদের বাধা দিয়েছে৷ অন্যদিকে, স্থানীয় তৃণমূল কর্মীদের অভিযোগ,মুকুল রায়ের সঙ্গে গুন্ডাবাহিনী রয়েছে ,তাই বাধা দিয়েছি৷

গত সোমবার সকাল ৯টা ৫০মিনিট৷ হঠাৎ গুলির শব্দে কেপে উঠে মেটিয়াবুরুজের একটি এলাকা৷ স্থানীয় বাসিন্দারা ছুটে গিয়ে দেখেন রাস্তার ওপর লুটিয়ে আছে এক যুবক৷ শরীর থেকে রক্ত ঝড়ছে৷ কারণ গুলিতে এফোঁড়- ওফোঁড় হয়ে গিয়েছে তার বুক৷ খবর দেওয়া হয় পুলিশকে৷ রাস্তা থেকে তাকে উদ্ধার করে পাঠানো হয় এসএসকেএম হাসপাতালে৷ এখনও ওই হাসপাতালে সে চিকিৎসাধীন৷

বিজেপি র নমো এগেইন এর সদস্য ও রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সঙ্ঘ (আরএসএস)-এর কর্মী বীরবাহাদুর সিংহ৷ অভিযোগ,এর আগেও তাকে মারধর করা হয়েছিল,হুমকি দেওয়া হয়েছিল৷ অভিযোগের তীর এক প্রোমোটারের বিরুদ্ধে৷ ওই প্রোমোটার স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলরের ঘনিষ্ঠ৷ সে সময় মেটিয়াবুরুজ থানায় অভিযোগ করা হয়েছিল৷ তারপর কেটে গিয়েছে ৫ মাস৷ কিন্তু পুলিশ কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি৷

সূত্রের খবর,গুলিবিদ্ধ বীরবাহাদুর সিংহ মেটিয়াবুরুজ এলাকায় একটি বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া রয়েছেন৷ বছর খানেক আগে থেকে তাকে বাড়ি ছাড়তে বলা হচ্ছে৷ এই নিয়ে বাড়িওয়ালা এবং প্রোমোটারের সঙ্গে তাঁর ঝামেলা চলছে৷ পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, বাড়িওয়ালা-ভাড়াটে সংঘাত থেকে এই ঘটনা ঘটতে পারে৷ তবে এর পেছনে অন্য কোনও কারণ আছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷

মেটিয়াবুরুজ থানা এলাকার লিচু বাগানের বাসিন্দা বীরবাহাদুর সিংহ৷ বয়স ২৯ বছর৷ পেশায় স্থানীয় একটি স্কুলের কম্পিউটার প্রশিক্ষক৷ সোমবার সকাল ১০ টা নাগাদ অন্যান্য দিনের মত হেঁটে বাড়ি থেকে স্কুলে যাচ্ছিলেন৷ তখন তাকে কাছ থেকে দুষ্কৃতীরা করে পালিয়ে যায়৷ সেই গুলি পিঠ দিয়ে ঢুকে বীরবাহাদুরের হৃদপিণ্ডের দেড় ইঞ্চি নীচ দিয়ে বেরিয়ে যায়৷ ঘটনাটি ঘটেছে গার্ডেনরিচ থানা এলাকার মসজিদ তালাও এলাকায়৷