স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী ও পদ্মভূষণ পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীর বাড়িতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়, বাংলার দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং। অজয়বাবুর সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ কথা বলেন তাঁরা। বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পীর বাড়িতে হঠাৎ করে রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতাদের যাওয়ায় তীব্র জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে।

আগামী বুধবার দুদিন সফরে রাজ্যে আসার কথা রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এর। সেসময় তিনি দলীয় কর্মসূচীর বাইরে রাজ্যের বিশিষ্ট কিছু মানুষদের সঙ্গে দেখা করবেন বলে জানা গিয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পশ্চিমবঙ্গ সফরের আগে বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পীর বাড়িতে কৈলাশ-মুকুলদের যাওয়ায় নতুন করে জল্পনা তৈরি হয়েছে।

যদিও এপ্রসঙ্গে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায় তিনি বলেন, “অজয় চক্রবর্তীর সঙ্গে আমার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। তাই পুজোর পর বিজয়া করতে এসেছিলাম। এছাড়া অন্য কোনও উদ্দেশ্য ছিল না। আজ আমাদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তার মধ্যে রাজনৈতিক বিষয় থাকলেও নির্দিষ্টভাবে কোনও ব্যাপারে আলোচনা হয়নি।”

লোকসভা ভোটের আগে থেকেই শিক্ষিত, মধ্যবিত্ত বাঙালিকে টানতে তাঁদের ঘরে ঘরে যাওয়া শুরু করেছেন রাজ্য বিজেপি নেতারা। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব রাজ্য নেতাদের বলেছিলেন, ‌পশ্চিমবঙ্গ থেকে বেশি আসন পেতে গেলে শিক্ষিত বাঙালির ঘরে ঢুকে যেতে হবে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এর পোশাকি নাম দিয়েছিল ‘‌জনসম্পর্ক অভিযান’‌।

এই অভিযানের অঙ্গ হিসেবে রাজ্য নেতারা এলিট বাঙালির কাছে পৌঁছোতে তৎপর হয়েছেন। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছে, বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের আগে সেই স্ট্র্যাটেজি নিতে চাইছে গেরুয়া শিবির।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।