স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ইএসআই বোর্ডের সদস্য নির্বাচনে দলীয় সাংসদকে জেতানোর জন্য মরিয়া ছিলেম তৃণমূল নেত্রী৷ এজন্য বিজেপি নেতৃত্বকে ফোনে আবেদনও করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বিস্ফোরক দাবি বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের৷

রাজ্যসভায় ইএসআই বোর্ডের সদস্য নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থীকে ভোট দেয় বিজেপি। গেরুয়া সাংসদদের ভোটেই এই কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন দোলা সেন।

বিগত পাঁচ বছর ধরে পদ্ম শিবিরের বিরুদ্ধে বিরোধী আন্দোলনের মুখ হয়ে উঠেছিলেন মমতা৷ মোদী বিরোধীতায় দেশজুড়ে ঝড় তুলেছিলেন৷ দ্বিতীয়বার নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় ফিরলে শপথ অনুষ্ঠানও বয়কট করেন তিনি৷ নীতি আয়োগ বা ‘এক দেশ এক ভোটে’ও তৃণমূল নেতৃত্রীর অনুপস্থিতি ছিল আলোচনার বিষয়৷ কিন্তু, এহেন চড়া সুরে বিজেপি বিরোধী নেত্রীও কিনা সাহায্য চাইলেন বিজেপিরছ? যা নিয়ে গুঞ্জন রাজনৈতিক মহলে৷ কংগ্রেস বাম নেতৃত্ব নেমেছেন প্রচারে৷

রাজ্যসভার ইএসআই কমিটির সদস্য নির্বাচন ভোট ছিল বুধবার৷ আলোচনার ভিত্তিতে সদস্য নির্বাচনই ছিল রেওয়াজ৷ এই কমিটির সদস্য ছিল তৃণমূল সাংসদ দেবব্রত মজুমদার৷ কিন্তু তাঁর মেয়ার ফুরনোয় সেটিতে নির্বাচন করায় সংসদীয় কার্য মন্ত্রক৷ ফলে এই আসনের দাবিদান ছিল তৃণমূলই৷৷ যদিও বোঝাপড়ার ভিত্তিতে পদটি বামেদের ছাড়তে রাজি হয় তৃণমূল৷ অঙ্কের হিসাব অবশ্য ওই পদ নিশ্চিৎ করতে কংগ্রেসের ভোটের প্রয়োজন ছিল৷

সেখানেই বিধি বাম৷ বামেদের সমর্থন দিতে নারাজ ছিল হাত শিবির৷ ফলে আসরে নামতে হয় তৃণমূলকে৷ তারা প্রার্থী করেন দোলা সেনকে। কংগ্রেস দাঁড় করায় প্রদীপ ভট্টাচার্যকে। সিপিএম প্রার্থী করে এলম আরম করিমকে।বুধবার ভোটাভুটির শেষে দেখা যায়, ৯০ ভোট পেয়ে জিতেছেন দোলা সেন। প্রদীপ ভট্টাচার্য পেয়েছেন ৪৬টি ভোট। সিপিএম প্রার্থী পেয়েছেন মাত্র ৮টি ভোট। হিসাব বলছে, বিজেপির অন্তত ২০টি ভোট পেয়েছেন দোলা।

এই জয়েয় পিছনে রয়েছে বিজেপি৷ দাবি মুকুল রায়ের৷ তিনি জানিয়েছেন, ‘‘দোলা সেনকে জেতানোর জন্য বিজেপিকে আবেদন জানিয়েছিলেন খোদ তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার ভিত্তিতেই তৃণমূল প্রার্থী জয় পেয়েছেন৷’’

বিজেপির ভোট তৃণমূল প্রার্থীর জয়ে দুই ফুল শিবিরের বোঝাপড়ার দাবি করেছে বাম ও কংগ্রেস৷ গোটা ঘটনায় অস্বস্তিতে তৃণমূল নেতৃত্ব৷ দায় এড়াতে তাদের দাবি, এক্ষেত্রে বিজেপির অন্য উপায় ছিল না৷ কারণ তাদের পক্ষে কংগ্রেস বা বামেদের ভোট দেওয়া অসম্ভব৷ আর আগে এই পদ ছিল তৃণমূলের দখলেই৷ যার জেরে গেরুয়া সাংসদরা ভোট দিয়েছেন দোল সেনকে৷