স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ভোট শেষ হওয়ার আগেই ঘর ভাঙতে পারে তৃণমূলের৷ সেই সম্ভাবনার ইঙ্গিতই দিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা মুকুল রায়৷ রবিবার উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটির মামুদপুরে বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংয়ের সমর্থনে প্রচার মিছিল করেন তিনি৷ সেখানেই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে মুকুল রায় একথা জানান৷

তিনি বলেন “এরাজ্যের ১০০ জন তৃণমূল বিধায়ক নিয়মিত আমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। তারা যে কোন দিন তৃণমূল কংগ্রেস ত্যাগ করে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দিতে পারে। হয়ত উত্তর ২৪ পরগনায় ভোট শুরুর আগেও তারা যোগদান করতে পারে আমাদের দলে।”

আরও পড়ুন : প্রচার শেষ হতেই বিজেপির উপরে হামলায় অভিযুক্ত তৃণমূল

এদিন তাঁকে প্রশ্ন করা হয় ছেলে শুভ্রাংশু রায়ের রাজনৈতিক ভবিষ্যত ও সিদ্ধান্ত নিয়েও৷ তবে সে ব্যাপারে নিজের দায় এড়িয়েছেন মুকুল৷ তিনি বলেন “শুভ্রাংশু কবে বিজেপিতে যোগ দেবে সেটা ওকেই জিজ্ঞাসা করুন। ও প্রাপ্তবয়স্ক, ওর কথা ওই বলবে।”

উল্লেখ্য, উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত নোয়াপাড়া ও বীজপুর বিধানসভা কেন্দ্রের দুই বিধায়কের তৃণমূল ত্যাগ নিয়ে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা। নোয়াপাড়া কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক সুনীল সিং এবং বীজপুর কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়কে কেন্দ্র করে তৈরী হয়েছে নতুন জল্পনা৷

রবিবাসরীয় সকালে উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটির মামুদপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার রামচন্দ্রপুর থেকে নৈহাটির নদিয়া জুটমিল পর্যন্ত হুড খোলা গাড়িতে বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংয়ের সমর্থনে বিশাল মিছিল করেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। এই প্রচার মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন স্থানীয় বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং, কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতা মুকুল রায় সহ বারাকপুর সাংগঠনিক জেলা বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন : প্রচারে বেরিয়ে মোয়া বিলি করলেন হুগলির বিজেপি কর্মীরা

এদিন মুকুল রায় সাংবাদিকদের আরো বলেন,”রাজ্য সরকারের উচ্চ পদস্থ আমলারা কেউ নিরপেক্ষ নন। রাজ্যের ডিজিও নিরপেক্ষ নন। এই পরিস্থিতির কথা আমরা সব নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছি।”

এদিন মিছিলে উপস্থিত হয়ে বিজেপিতে শুভ্রাংশু রায়ের যোগদান প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের অর্জুন সিং বলেন,”শুভ্রাংশু রায়ের বিজেপিতে আসা প্রসঙ্গে মুকুল রায় আগেই যা বলার বলেছেন। তবে ওকে বিজেপিতে স্বাগত জানাই। ও বিজেপিতে যোগ দেওয়া প্রসঙ্গে বিধায়ক হিসেবে যা বলেছে সেই বক্তব্যকে আমি সমর্থন করি। আমি সাংসদ হলে নিশ্চই প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করব, যাতে বীজপুরে রেলের কোচ ফ্যাক্টরি দ্রুত গড়ে ওঠে এবং ওই এলাকার যুবকদের চাকরির ব্যবস্থা হয়।”

এদিন অর্জুন সিং দাবী করেন ভোটের দিন যত এগোচ্ছে ততই ব্যারাকপুরে বিজেপির জন সমর্থন বাড়ছে এবং তৃণমূল জনগণের থেকে দূরে সরে যাচ্ছে৷