ঢাকা: বইটি বাংলাদেশের ‘জাতীর পিতা’ মুজিবুর রহমানের জীবনীর খণ্ডাংশ৷ সেই ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ এবার হিন্দিতে প্রকাশ হতে যাচ্ছে৷ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মুজিব কন্যা তথা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে বইটির হিন্দি সংস্করণের প্রথম প্রকাশ অনুষ্ঠানটি হবে৷

 

গবেষণা রিপোর্ট: ‘হিন্দু শূন্য’ হবে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ

আরও পড়ুন:কলকাতায় ধর্মের কোপে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে আগামী ৭ এপ্রিল দিল্লি সফরে যাচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী৷ সফরে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে উঠে আসছে তিস্তা জলবন্টন চুক্তি ও দুই দেশের মধ্যে প্রতিরক্ষা চুক্তি৷ এরই মাঝে পিতা মুজিবুর রহমানের লেখা আত্মজীবনীর হিন্দি মোড়ক উন্মোচনে অনুষ্ঠানটি আছে৷

আরও পড়ুন: ‘আত্রেয়ীর জল দাও, তিস্তার পানি নাও’

আরও পড়ুন: ফাগুন বাতাসে স্বাধীনতার ডাক শুনেছিলেন লাখো বাঙালি

২০০৪ সালে শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা চারটি খাতা আকস্মিকভাবে তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার হাতে এসেছিল৷  খাতাগুলি ছিল অতি পুরানো, পাতাগুলি জীর্ণপ্রায় এবং লেখা প্রায় অস্পষ্ট। সেই খাতায় শেখ মুজিব ১৯৬৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি অবস্থায় দিনলিপি লেখা শুরু করেছিলেন। পরে সেটি আর সম্পূর্ণ করতে পারেননি৷ সেই  লেখা নিয়েই প্রকাশ করা হয়েছে অসমাপ্ত আত্মজীবনী (The Unfinished Memoirs)৷  ঢাকার  বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খানের সম্পাদনায় সেই লেখা গ্রন্থে রূপান্তরিত করা হয়েছে৷  বাংলা, ইংরাজি  ছাড়াও বিভিন্ন ভাষায় এই বই অনুবাদ হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: Big News: বঙ্গবন্ধুর বাংলায় পাঠ্যবইয়ে রবীন্দ্রনাথকে ছেঁটে ফেললেন হাসিনা

আরও পড়ুন: বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট: বাংলাদেশের পাশে ভারত

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দফতর সূত্রে খবর,  আগামী ৮ এপ্রিল ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের ‘ফোর কোর্টে’ শেখ হাসিনাকে দেওয়া হবে গার্ড অব অনার। সেখানে থাকবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷  এরপরে  রাজঘাটে যাবেন শেখ হাসিনা। ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে। সেখান থেকে সরাসরি চলে যাবে হায়দরাবাদ হাউসে। ঢাকা-নয়াদিল্লি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শুরু হবে সেখানেই। আর বৈঠকের আগে বঙ্গবন্ধু মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত আত্মজীবনীর হিন্দি অনুবাদের মোড়ক উন্মোচন করবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।