চেন্নাই: জাতীয় দলে মহেন্দ্র সিং ধোনির প্রত্যাবর্তন নিয়ে সংশয় থাকলেও আইপিএলে প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল৷ চেন্নাই সুপার কিংস ম্যানেজমেন্টের কথা ধরলে ২০২২ পর্যন্ত আইপিএল খেলতে দেখা যাবে ধোনিকে৷

করোনা আবহেও হতে চলেছে ২০২০ আইপিএল৷ দেশের মাঠে না-হলেও বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ এবার হবে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর মাটিতে৷ ৫৩ দিনের এই টুর্নামেন্ট শুরু হবে ১৯ সেপ্টেম্বর৷ ফাইনাল ১০ নভেম্বর৷ তবে শুধু এই আইপিএলেই নয়, আগামী দু’টি আইপিএলে হলুদ জার্সিতে ধোনিকে দেখা যাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী সিএসকে টিম ম্যানেজমেন্ট৷

ধোনির ফিরে আসার ব্যাপারে আশাবাদী ছিল টিম ম্যানেজমেন্ট৷ সিএসকে-ক সিইও কাশী বিশ্বনাথন জানিয়েছেন, ‘হ্যাঁ। আমরা আশা করতে পারি যে এমএস ধোনি ২০২০ এবং ২০২১ আইপিএলে আমাদের হয়ে খেলবে৷ সম্ভবত তার পরের বছরেও অর্থাৎ ২০২২ আইপিএলে অংশ নেবেন ধোনি৷’

কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে চলতি বছরে আইপিএল হওয়া নিয়ে দেখা গিয়েছিল চরম অনিশ্চয়তা৷ মার্চ থেকে স্থগিত থাকা আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণ শেষ পর্যন্ত দিনের আলো দেখতে চলেছে অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-২০ বিশ্বকাপ স্থগিত হওয়ার কারণে৷ মাসখানেক আগেই আইসিসি-র তরফে জানিয়ে দেওয়া হয় করোন মহামারীর করাণে চলতি বছরে টি-২০ বিশ্বকাপ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

এরপরই বিশ্বকাপের ফাঁকা উইন্ডোতে আইপিএল করার কথা ঘোষণা করে বিসিসিআই৷ ফলে এক বছরের বেশি সময় ধরে প্রতিযোগতিমুলকর ক্রিকেটের বাইরে থাকা ধোনির আইপিএলের হাত ধরে ফের মাঠে ফেরার সুযোগ চলে আসে৷

চেন্নাই সুপার কিংসের সিইও-র মতে, সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে ২০২০ আইপিএলে ধোনির উপস্থিতি সম্পর্কে ফ্র্যাঞ্চাইজি আগের মতোই আত্মবিশ্বাসী। ১৩ মাস পর ধোনির ক্রিকেট মাঠে ফিরে আসায় সবার নজর থাকবে ৩৯ বছর বয়সি সিএসকে এই তারকা ক্রিকেটারের পারফরম্যান্সের দিকে। গত বছর জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপের পর থেকে কোনও ম্যাচ খেলেননি ধোনি৷ সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে ২০১৯ বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছিল ভারত৷ আর সেটাই ছিল ধোনি শেষ প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট ম্যাচ৷

কিন্তু এতে বিন্দুমাত্র বিচলিত নয় সিএসকে টিম ম্যানেজমেন্ট৷ সিইও কাশী বিশ্বনাথন বলেন, ‘আমি কেবল মিডিয়ার মাধ্যমে আপডেট পেয়েছি৷ মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পেরেছি যে, ধোনি ঝাড়খণ্ডে ইনডোর নেটে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। তবে আমাদের অধিনায়ক তথা বস সম্পর্কে চিন্তা করতে হবে না। আমরা তাঁকে নিয়ে মোটেই চিন্তা করি না। তিনি তাঁর দায়িত্ব জানেন এবং নিজের এবং দলের টেক কেয়ার করবে৷’

তবে মার্চের শুরুতে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আগে চিপকে প্র্যাকটিস শুরু করেছিল সুপার কিংস৷ আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণে ভবিষ্যতের জল্পনা নিয়ে উদ্বিগ্ন প্রথম দিন থেকেই ধোনি শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন৷ কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে শিবির মাঝপথেই বন্ধ করে দেওয়া হয়৷ কিন্তু এর আগে একটি প্র্যাকটিস ম্যাচে ৯১ বলে ১২৩ রানের ইনিংস খেলেছিলেন ধোনি৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও