নয়াদিল্লি: একদিকে যেমন ধোনির অবসর নিয়ে চলছে জল্পনা, তেমনই খেলা শেষে তিনি রাজনীতিতে যোগ দিতে পারেন এমনটাও কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে। ধোনির রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনার কথা এবার জানালেন খোদ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বর্ষীয়ান বিজপি নেতা সঞ্জয় পাসোয়ান।

ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে ধোনি রাজনীতিতে যোগ দিতে পারেন, আরও স্পষ্ট করে বলতে গেলে বিজেপিতেই যোগ দিতে চলেছেন তিনি। এমনটাই দাবি করেছেন সঞ্জয় পাসোয়ান। ‘টিম নরেন্দ্র মোদী’তে ধোনি থাকবেন বলেই জানিয়েছেন এই বিজেপি নেতা।

সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সঞ্জয় পাসোয়ান জানান, দীর্ঘদিন ধরেই ধোনির সঙ্গে গেরুয়া শিবিরের কথাবার্তা চলছে। তিনি গেরুয়া ইবিরে যোগ দিতে পারেন। তবে সেই সিদ্ধান্ত ধোনি অবসর নেওয়ার পরই নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।শুধু তাই নয়, ধোনির সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্কের কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরেই প্রাক্তন বিশ্বজয়ী অধিনায়কের সঙ্গে তাঁর সুসম্পর্ক রয়েছেল আর সেই সম্পর্কের খাতিরেই তাঁর আশা ধোনি ঠিকই আসবেন বিজেপিতে।

সেমি ফাইনালে ভারতের হারের পর থেকেই ফের আলোচিত ধোনি। বারবার তাঁর অবসরের সম্ভাবনার কথা সামনে আসলেও, এখনও পর্যন্ত তেমন কিছু জানাননি মাহি নিজে। তাঁকে ৭ নম্বরে ব্যাট করতে পাঠানোর যে সিদ্ধান্ত কোহলি নিয়েছিলেন, তাতেও বিতর্কের জন্ম হয়েছে। অনেকেই চাইছেন ধোনি থাকুন। সেমি ফাইনালের হারের পরও প্রাক্তন অজি অধিনায়ক স্টিভ ওয়া বলেছেন, ‘ধোনিকে ছাড়া কোনোভাবেই জেতা সম্ভব ছিল না।’

এই পরিস্থিতিতে মনে করিয়ে দেওয়া দরকার ‘সম্পর্ক সমর্থন’ ক্যাম্পেনের সময় ধোনির সঙ্গেই দেখা করেছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ।

সূত্রের খবর, ধোনি বিধানসভা ভোটে না দাঁড়ালেও, বিজেপি চাইছে, ধোনি তাঁদের হয়ে নির্বাচনে সক্রিয়ভাবে প্রচার করুন। ধোনি-মাহাত্ম্যেই ঝাড়খণ্ডের জেএমএম, আরজেডি কিংবা কংগ্রেসকে পিছনে ফেলতে মরিয়া বিজেপি।

এমনিতে, ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচন ডিসেম্বরে হওয়ার কথা। তবে মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানার সঙ্গে একসঙ্গে অক্টোবরেও এগিয়ে আনা হতে পারে ঝাড়খণ্ডের নির্বাচন।

ঝাড়খণ্ডের বিজেপি নেতৃত্ব ধোনিকে নির্বাচনের প্রচারে পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী। তাঁদের আশা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পরে ধোনি-ই নির্বাচনে তাঁদের তুরুপের তাস হতে চলেছেন।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।