ফ্লোরিডা: চাপে আছেন বোঝা গেল। চাকরি বাঁচাতে আত্মপক্ষ সমর্থনের তাগিদ দেখা গেল টিম ইন্ডিয়ার ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গারের মধ্যে।

নিউজিল্যান্ডের কাছে সেমিফাইনালে হেরে টিম ইন্ডিয়া বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেওয়ার পর থেকে কার্যত তোপের মুখে দাঁড়িয়ে বাঙ্গার। এমনটা নয় যে, হেড কোচ শাস্ত্রী এবং বাকি দুই সাপোর্ট স্টাফ ভরত অরুণ ও আর শ্রীধরের কাজে বোর্ড খুশি। শাস্ত্রীদের নিয়ে বোর্ডের অন্দরমহলে অসন্তোষ স্পষ্ট। তবে ক্যাপ্টেন কোহলির আনুগত্য থাকায় চাকরি বাঁচিয়ে নিতে পারেন শাস্ত্রী। ভরত অরুণ ও শ্রীধরকে নিয়ে তেমন কোনও উচ্চবাচ্য না-হলেও বলির পাঁঠা করার তোড়জোড় চলছে বাঙ্গারকে।

বিশেষ করে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ধোনির ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে অখুশি স্পষ্ট ভারতীয় ক্রিকেটমহলে। ধোনিকে সাত নম্বরে ব্যাট করতে পাঠানোয় বাঙ্গারের হাত ছিল বলেই মনে করা হচ্ছে। ক্যাপ্টেন ও কোচ এমন সিদ্ধান্তকে দলগত সিদ্ধান্ত বলে উল্লেখ করলেও বাঙ্গারের দিক থেকে অভিযোগের তির ঘুরছে না। এই অবস্থায় নিজের তরফে সাফাই দেওয়ার কাজ শুরু করলেন কোহলিদের ব্যাটিং কোচ। বাকি কোচিং স্টাফদের সঙ্গে যাঁর মেয়াদ আপাতত ৪৫ দিনের জন্য বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ক্যারিবিয়ান সফরের জন্য।

গোটা বিশ্বকাপ জুড়েই ধোনির ব্যাটিং নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলেছে। মন্থর ব্যাটিংয়ের জন্য অল্প বিস্তর সমালোচনা শুনতে হলেও সেমিফাইনালে যখন ২৪ রানের মধ্যে টপ অর্ডারের চারজন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বসেছে ভারত, তখন ধোনির মতো অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে বিপর্যয় রোধে কাজে লাগাতে না-পারার জন্য কাঠগড়ায় তোলা হচ্ছে বাঙ্গারদের। ধোনির থেকেও আগে দীনেশ কার্তিক এবং হার্দিক পান্ডিয়াকে ব্যাট করতে পাঠানো নিয়ে শাস্ত্রী আগেই সাফাই দিয়েছিলেন যে, প্রয়োজনের তাগিদে এটা একটা নিতান্ত ছোট সিদ্ধান্ত ছিল। ধোনি টপ অর্ডারে নেমে আগে আউট হয়ে বসলে রান তাড়া করা মুশকিল হয়ে দাঁড়াত বলে মনে হয়েছিল টিম ম্যানেজমেন্টের।

এবার বাঙ্গার নিজের দিক থেকে অভিযোগের তির ঘোরাতে স্পষ্ট জানালেন যে, ধোনিকে সাত নম্বরে ব্যাট করতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত তার একার ছিল না। বরং সেটা টিম ম্যানেজমেন্টের সমবেত সিদ্ধান্ত ছিল। বাঙ্গার অবাক হচ্ছেন এর জন্য তাঁকে একা দায়ী করা হচ্ছে দেখে।

টিম ইন্ডিয়ার ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের ঠিক আগে হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাঙ্গার বলেন, ‘আমি সত্যিই হতভম্ব যে, লোকে আমার দিকে আঙুল তুলছে। অথচ এই বিষয়ে আমার একার সিদ্ধান্ত নেওয়ার এক্তিয়ার নেই। পরিস্থিতি অনুযায়ী সেটা ছিল টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত। রবি শাস্ত্রীও পরিষ্কার এটা বলেছে যে, ধোনিকে সাত নম্বরে পাঠানোটা গোটা দলের সিদ্ধান্ত। তাই আমি বুঝতে পারছি না এর জন্য আমাকে একা কেন দায়ী করা হচ্ছে।’

বাঙ্গার প্রকারান্তরে বিতর্কে জড়িয়ে নিলেন রবি শাস্ত্রীদেরও। এখন দেখার যে, এমন সাফাইয়ের পরে বিসিসিআই তাঁকে নতুন করে টিম ইন্ডিয়ার দায়িত্ব দেয় কীনা।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব