স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বরাবরই তৃণমূলের বিরুদ্ধে তাঁর সংগ্রাম আপোষহীন। দ্বিতীয়বার প্রদেশ সভাপতির চেয়ারে বসে প্রথমেই সেকথা মনে করিয়ে দিলেন তিনি। অধীর চৌধুরী জানালেন, করোনা গেলেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে জবরদস্ত আন্দোলনে নামবে কংগ্রেস।

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রথম সাংবাদিক বৈঠক করেন অধীর চৌধুরী। প্রথম দিনেই একুশের বিধানসভা ভোটের লড়াই জোরদার করার ডাক দিয়েছন তিনি। অধীরের কথায়, “করোনা গেলেই স্বৈরাচারী তৃণমূলের বিরুদ্ধে জবরদস্ত আন্দোলনে নামবে রাজ্য কংগ্রেস!”

অধীর আরও জানিয়ে দিয়েছেন, ২০২১ সালে রাজ্যের বিধানসভা ভোটে সিপিএম তথা বামেদের সঙ্গে কংগ্রেসের নির্বাচনী সমঝোতা বা জোট অটুট থাকবে।

এ দিন অধীর জানান, বুধবার রাতে সনিয়া গান্ধী সরাসরি তাঁকে ফোন করে প্রদেশ কংগ্রেসের দায়িত্ব নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। রাজ্য কংগ্রেস যে পরিস্থিতিতে আপাতত রয়েছে, তাতে এই দায়িত্ব একটা বড় চ্যালেঞ্জ। তাঁর কথায়, ‘‘সোমেন মিত্রের মৃত্যুর পর কাউকে না কাউকে শূন্যস্থান পূরণ করাটা জরুরি হয়ে পড়েছিল। সেই সুবাদে আমাকে এই দায়িত্ব নিতে হয়েছে।’’

একই সঙ্গে দলের শক্তি বৃদ্ধি করতে দলবদলিদের ফিরে আসার বার্তা দিয়েছেন অধীর চৌধুরী। তিনি বলেছেন, যাঁরা কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল বা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তাঁরা ফিরে আসুন। দল তাঁদের যোগ্য সম্মান দেওয়ার চেষ্টা করবে। ফিরে আসার জন্য আন্তরিক সম্মান জানাই। প্রসঙ্গত, এর আগে তিনি সভাপতি থাকার সময় কংগ্রেসের ভাঙন চওড়া হয়েছিল। তাই এদিন তাঁর আবেদন যথেষ্ঠ তাৎপর্যপূর্ণবলেই মনে করছে পর্যবেক্ষকরা।
এদিন নতুন উদ্যোমে দলীয় কর্মীদের লড়াইয়ে নামার বার্তা দিয়েছেন অধীর চৌধুরী। বাংলার এক ইঞ্চি জমি তৃণমূল এবং বিজেপিকে ছাড়বেন না বলে দলীয় কর্মীদের প্রস্তুত থাকার বার্তা দিয়েছেন প্রদেশ সভাপতি।

২০১৮ সালে আকস্মিক ভাবে তাঁকে সরিয়েই সোমেন মিত্রকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির কুর্সিতে বসিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। সোমেন মিত্রর প্রয়াণের প্রায় এক মাস পর ফের সেই অধীর চৌধুরীকেই বিধান ভবনের মাথায় বসালেন সোনিয়া গান্ধী।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বাংলায় এই মুহূর্তে কংগ্রেসের সব থেকে দাপুটে মুখ বহরমপুরের এই সাংসদ। লোকসভা নির্বাচনে দেশজুড়ে কংগ্রেসের ভরাডুবি বাজারেও নিজের গড় ধরে রাখতে সফল তিনি। সেইসঙ্গে রয়েছে গান্ধী পরিবারের প্রতি আনুগত্য। যার ফল স্বরূপ একের পর এক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পাচ্ছেন তিনি।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।