স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: খোদ পুর প্রধানের বিরুদ্ধে কাটমানি সহ রাজনৈতিক হিংসার অভিযোগ করে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছিল দলেরই কাউন্সিলররা। যদিও পুর প্রধান নিহার রঞ্জন ঘোষের বিরুদ্ধে আনা দলীয় কাউন্সিলরদের সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করে গিয়েছেন পুর প্রধান নিজে । দলের মধ্যে এই অন্তর্দ্বন্দ্বের জেরে পুরসভার যাবতীয় কাজকর্ম শিকেয় উঠেছে বলে সূত্রের খবর। আর এদিকে তৃণমূলের নিজেদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছে বিরোধীরা।

সূত্রের খবর, মধ্যাহ্ন ভোজনের নামে শনিবার দুপুরে কৃষ্ণেন্দুর মানভঞ্জনে দলীয় কার্যালয়ে গিয়েছিলেন পর্যবেক্ষক ও সভানেত্রী। আর সেখানে গিয়ে দলীয় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গড়ার সিদ্ধান্ত নিলেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

এত কিছুর পরও জট কাটল না ইংরেজবাজার পৌরসভার। সূত্রের খবর, শনিবার সারাদিন ধরে তৃণমূলের নিজস্ব কার্যালয়ে দলীয় কাউন্সিলরদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন তৃণমূলের জেলা সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর ও দলীয় পর্যবেক্ষক গোলাম রব্বানী।

বৈঠক শেষে গোলাম রাব্বানী জানান, ইংরেজবাজার পৌরসভার পৌর প্রধানের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ গুলি উঠেছে তার জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। কাউন্সিলরদের যা অভিযোগ রয়েছে সেগুলি খতিয়ে দেখা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

যদিও অনাস্থা প্রত্যাহার প্রসঙ্গে কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী বলেন, ‘আমার সাথে রাজনীতি নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি’। সবকিছু সংবাদমাধ্যমের সামনে বলা যায়না। তবে দলীয় প্রধান নিহার রঞ্জন ঘোষের বিরুদ্ধে তিনি ও তাঁর অনুগামী কাউন্সিলররা যে অনাস্থা এনেছেন তা প্রত্যাহার করবেন কিনা তা খোলসা করে কিছুই বলেননি তিনি।

এই বিষয়ে পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান দুলাল সরকার বলেন,দলের শীর্ষ নেতৃত্ব যা সিদ্ধান্ত নেবেন সেই ভাবে চলা হবে।

যদিও যাকে নিয়ে এত জলঘোলা সেই পুরপ্রধান নীহাররঞ্জন ঘোষের এই বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া মেলেনি। অন্যদিকে জেলা সভাপতি মৌসুম নূর জানিয়েছেন, সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। তিনি আরও বলেন, আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করা হবে। কিন্তু কবে এই সমস্যার সমাধান মিটবে তা নিয়ে দলের কেউই কোনও উচ্চবাচ্য করেননি শনিবার।

এদিকে তৃণমূলের এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছে জেলার অন্য বিরোধী দলগুলি। এই প্রসঙ্গে বিজেপির মালদা জেলার সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত চ্যাটার্জী বলেন, ‘পুরসভা নিয়ে নাটক চলছে’। তিনি আরও বলেন, এটা বখরা ভাগ্ ও কাটমানি ভাগের লড়াই । এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে তৃণমূলের নিজেরদের ঘরের লড়াই বলেও মন্তব্য করেন বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত চ্যাটার্জী।