কলকাতাঃ  ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে পরিস্থিতি। ১ লা জুন থেকে মন্দির, মসজিদ সমস্ত কিছু খোলার নির্দেশ দিয়েছেন। এরপর ৮ তারিখ থেকে সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারি সংস্থাও খুলবে বলে জানিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু রাজ্য নয়, পঞ্চম দফার লকডাউনে একগুচ্ছ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে কেন্দ্র। কনটেনমেন্ট জোন ছাড়া সব জায়গায় খোলা যাবে বলে জানানো হয়েছে। তবে সেটা আগামী ৮ তারিখ থেকে। অর্থাৎ ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হওয়ার পথে দেশ।

ইতিমধ্যে শহরে চালু হয়েছে সরকারি বাস পরিষেবা। এবার মোটর ভেহিকল অফিসও খোলার সিদ্ধান্ত। প্রায় দুমাসের বেশি সময় ধরে চলছে লকডাউন। গাড়ি, ড্রাইভিং লাইসেন্স সংক্রান্ত একাধিক কাজ আটকে রয়েছে। বিশেষ করে গাড়ির রেজিষ্ট্রেশন থেকে শুরু করে লাইসেন্সের রিনিউ, গাড়ির মালিকানা বদল, ঠিকানা বদলের মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলি আটকে রয়েছে।

মূলত মোটর ভেহিকল দফতর বন্ধ থাকার ফলে সমস্যা তৈরি হয়। কিন্তু অবশেষে স্বস্তির খবর। সোমবার থেকে খুলে যাচ্ছে মোটর ভেহিকলের অফিস। পরিবহণ দফতর সূত্রে খবর, দফতরে সমস্ত পরিষেবা পেতে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ৩টে পর্যন্ত টাকা জমা দেওয়া যাবে। লকডাউনের জেরে পরিবহণ ব্যবসার সঙ্গে যাঁরা যুক্ত, তাঁরা সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছিলেন। ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে চলেছে সমস্ত রকম গণপরিবহণ। ধীরে ধীরে রাস্তায় নামছে অটো, ট্যাক্সি, বাস। বেসরকারি বাস-মিনিমাসও নামবে সোমবার থেকে।

এরপর ৮ তারিখ থেকে সমস্ত কিছু খুলে গেলে রাস্তায় গাড়ি বাড়বে। বাইক বাড়বে। আর রাস্তায় গাড়ি বাইক নামলে কাগজপত্র ঠিক থাকাটা খুব প্রয়োজন। আর সেজন্য মোটর ভেহিকাল খোলাটা খুব প্রয়োজন। অফিস বন্ধ থাকায় অনেকেই লাইসেন্স, রেজিস্ট্রেশন এবং গাড়ির সিএফ করাতে পারছিলেন না।

এ বার এ সংক্রান্ত সব রকমের পরিষেবা মিলবে মোটর ভেহিকল অফিসে। তবে পরিবহণ দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে, এক দিনে ৫০টির বেশি গাড়ির রেজিষ্ট্রেশনের জন্য স্বাস্থ্য পরীক্ষা হবে না। তবে এখনই সব কর্মী কাজে যোগ দিচ্ছেন না। অনলাইনের মাধ্যমে যতটা সম্ভব কাজ করা যায় সেদিকেই নজর রাখা হচ্ছে।ো

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV