মস্কো ও কাবুল: ঈদের সময়ে কি ফের তালিবান ও আফগান সরকারের মধ্যে চমকপ্রদ সংঘর্ষ বিরতি হবে ? বহু চর্চিত এই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সব থেকে বড় উৎসব ঘিরে এর আগে আফগানিস্তানে জঙ্গি ও সেনাকর্মীরা গলাগলি করেছিলেন৷ উৎসব মিটতেই আবার দু পক্ষে শুরু হয়েছিল সংঘর্ষ৷ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের খবর, চলতি বছর ঈদে তেমন ছবি দেখার সম্ভাবনা কম৷

আফগান সংবাদ মাধ্যম জানাচ্ছে, দেশের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই ও তালিবানদের ১৪ সদস্যের প্রতিনিধিদের মধ্যে বৈঠক হয় রুশ রাজধানী মস্কোতে৷ এই বৈঠকে সংঘর্ষ বিরতি প্রস্তাব খারিজ হয়েছে৷ নজিরবিহীনভাবে হওয়া এই বৈঠক ঘিরে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক মহল বিভিন্ন পর্যালোচনা করছে৷ বৈঠকে বর্তমান সরকারের কোনও প্রতিনিধি ছিলেন না৷ তালিবান জানায় কোনও আলোচনাতেই তারা আফগান সরকারের প্রতিনিধিদের মেনে নেবে না৷ কারণ তারা আফগানিস্তানের সরকারকে বৈধ হিসেবে স্বীকার করে না। তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা, বৈঠকেই ছিলেন প্রাক্তন দেশটির প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই৷

১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তানে সরকার চালিয়েছে এই জঙ্গি গোষ্ঠী৷ আমেরিকার নেতৃত্বে বিরাট সামরিক অভিযানের পর তাদের সরকার থেকে উৎখাত করা হয়৷ পুনরায় বিরাট শক্তি সঞ্চয় করে আফগানিস্তানের দখল নিতে মরিয়া সংঘর্ষ চালাচ্ছে তালিবান৷ বারেবারে নাশকতায় রক্তাক্ত আফগানভূমি৷ লাগাতার হামলায় সরকার কোণঠাসা৷ তালিবান ও আফগান সরকারের মধ্যে আলোচনা করে পরিস্থিতি মোকাবিলার চেষ্টা চলছে৷

রুশ সংবাদ সংস্থা তাস জানাচ্ছে, বৈঠক শেষে তালিবান প্রতিনিধি প্রধান মোল্লা বারাদার জানিয়েছেন- তালিবান শুধুমাত্র তখনই কোনও শান্তি চুক্তিতে সই করবে যখন বিদেশি সেনা আফগানিস্তান ছাড়বে৷ তালিবান শান্তি চায় কিন্তু সবার আগে শান্তির পথের বাধা দূর করতে হবে। এই বাধাটা হচ্ছে আফগানিস্তানে দখলদারিত্ব৷ বিবিসি, আলজাজিরা ও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থার রিপোর্ট, আফগানিস্তানে বর্তমানে ২৩ হাজার বিদেশি সেনা রয়েছে। এদের বেশিরভাগই আমেরিকান৷

আফগানিস্তানে শান্তি ফেরাতে বারে বারে তালিবান গোষ্ঠীর সঙ্গে বৈঠক হচ্ছে৷ কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী ও রাশিয়ায় এই বৈঠক হয়েছে৷ বৈঠকগুলিতে তালিবান তরফে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে রয়েছে আফগান মহিলাদের নারীদের বিষয়ে তাদের দৃষ্টিভঙ্গি ও দেশের সংবিধান পরিবর্তনের মতো বিষয়৷ তালিবান যুক্তি- নতুন সংবিধান ইসলামি বিশেষজ্ঞরা প্রণয়ন করবেন৷