কলকাতা: বাংলায় মৃত্যুহার কমে ১ দশমিক ৭৮ শতাংশ৷ গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের৷ আক্রান্ত আরও ১৭১ জন৷

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন (State Health Department) বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী,রাজ্যে নতুন করে করোনা আক্রান্তের (COVID-19)সংখ্যা ১৭১ জন৷ সোমবার ছিল ১৯৮ জন৷ রবিবার ছিল ১৯২ জন৷ সব মিলিয়ে বাংলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫ লক্ষ ৭৫ হাজার ৪৮৭ জন৷

অন্যদিকে স্বস্তি বাড়িয়ে করোনা জয়ীর সংখ্যা ছাপিয়ে গিয়েছে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাকে৷ বাংলায় গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২০৯ জন৷ সোমবার ছিল ২১২ জন৷ রবিবার ছিল ২১৬ জন৷ রাজ্যে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫ লক্ষ ৬১ হাজার ৯৬৪ জন৷ আর সুস্থতার হার বেড়ে ৯৭.৬৫ শতাংশ৷

রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ জনের৷ সোমবার এই সংখ্যাটা ছিল শূন্য৷ রবিবার ছিল ২ জনে৷ শনিবার ছিল ৩ জন৷ সব মিলিয়ে বাংলায় মোট মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ২৭০ জনের৷

তবে বাংলায় কমেছে মৃত্যুহার৷ পয়লা মার্চ এর তথ্য অনুযায়ী, বাংলায় মৃত্যু হার ১ দশমিক ৭৮ শতাংশ৷ সোমবারও ছিল ১ দশমিক ৭৯ শতাংশ৷ যদিও পশ্চিমবঙ্গে বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীনের সংখ্যাটা কমে মাত্র ৪১৩ জন৷ হোম আইসোলেশনে ২,৮৮০ জন৷ সেফ হোমে একজনও নেই৷

একদিনে টেস্ট হয়েছে ১৮ হাজার ৯৬৫টি৷ সোমবার ছিল ১৬ হাজার ১৪ টি৷ রবিবার ছিল ১৯ হাজার ৭৬৪টি৷ ফলে মোট করোনা টেস্ট হয়েছে প্রায় ৮৬ লক্ষ৷ তথ্য অনুযায়ী ৮৫ লক্ষ ৯৮ হাজার ২৫৭টি৷ ফলে প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় টেস্টের সংখ্যা বেড়ে হল ৯৫,৫৩৬ জন৷

অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা কমে ৩ হাজারের একটু বেশি৷ তথ্য অনুযায়ী,৩ হাজার ২৫৩ জন৷ সোমবার ছিল ৩ হাজার ২৯৩ জন৷ শুক্রবার ছিল ৩ হাজাকর ৩৪৩ জন৷ বৃহস্পতিবার ছিল ৩ হাজার ৩৫৩ জন৷

এই মুহূর্তে সরকারি এবং বেসরকারি মিলিয়ে রাজ্যে ১০৫ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে৷ আরও ১ টি ল্যাবরেটরি অপেক্ষায় রয়েছে৷

বি: দ্র: – প্রতিদিন সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন থেকে যে বুলেটিন প্রকাশিত হয়,সেখানে আগের দিন সকাল ৯ টা থেকে বুলেটিন প্রকাশিত হওয়ার দিন সকাল ৯ টা পর্যন্ত তথ্য উল্লেখ করা হয়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.