নয়াদিল্লি: শীতের মরশুমে হিমালয় দেখার শখ ছিল। সেই অনুযায়ী করেছিলেন পরিকল্পনা। কিন্তু সেই শখ মেটাতে গিয়ে এত প্রতিকূলতার মধ্যে পড়তে হবে তা ভাবতেও পারেননি পর্যটকেরা।

শীতের মরশুমে বরফে ঢা হিমালয় দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন। আরও ভালো লেগেছিল চোখের সামনে তুষারপাত দেখে। তখনও অনুমান করতে পারেননি নিজেদের পড়তে হবে তুষারপাতের কবলে। কিন্তু সেটাই ঘটল কয়েক হাজার পর্যটকের সঙ্গে।

পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হয়ে যাওয়ায় ওই পর্যটকদের উদ্ধারে নামতে হয় সেনাবাহিনীকে। সেনা জওয়ানদের তৎপরতায় ২৫০০ পর্যটককে উদ্ধার করা হয়েছে। শুধু তাই পর্যটকদের উদ্ধার করে তাঁদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করেছে সেনা। একই সঙ্গে গরম জামাকাপড় এবং ওষুধের ব্যবস্থাও করা হয়েছে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে।

শনিবার সকালে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পক্ষ থেকে এই খবর জানানো হয়েছে। সেখানে আরও বলা হয়েছে যে সিকিমের নাথু লা এলাকায় ঘুরতে গিয়ে আটকে পড়েন কয়েক হাজার পর্যটক। প্রবল তুষারপাতের মাঝে কিছু করার ক্ষমতা ছিল না তাঁদের। কমপক্ষে ৩০০ থেকে ৪০০টি গাড়ি আটকে পড়েছিল।

ভারত-চিন সীমান্তের সেই এলাকায় পর্যটকদের উদ্ধারে আসরে নামে সেনাবাহিনী। খুব দ্রুততার সঙ্গে পর্যটকদের উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। দু’টি শিবিরে ভাগ করে রাখা হয়েছে সেই সকল পর্যটকদের। খুব শীঘ্রই ওই পর্যটকদের গ্যাংটকে নিয়ে যাওয়া হবে বলে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।