স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: সপ্তদশ নির্বাচনে প্রথম দফার ভোট পর্ব সম্পন্ন হল আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে৷ শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণের মাঝেই কিছু বিক্ষিপ্ত ছবি উঠে আসে সংবাদ মাধ্যমে৷ তৃণমূল বনাম বিজেপি কাজিয়া যেখানে তুঙ্গে সেখানে তমলুকে সিপিএম শিবিরে ধস নামিয়ে তৃণমূলের হাত শক্ত করলেন অনেকে৷

ষষ্ঠ দফায় ভোট রয়েছে এই তমলুক লোকসভা কেন্দ্রে৷ নির্বাচনের দিন যতই এগিয়ে আসছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা থেকে বামেরা তাদের অস্তিত্ব সঙ্কট প্রকট হয়ে উঠছে বলে অনেকেরই মত। লোকসবা নির্বাচনের উত্তপ্ত পরিস্থিতির মধ্যেই তৃণমূলে যোগদান করলেন সিপিএমের শতাধিক নেতাকর্মী৷ বৃহস্পতিবার বিকেলে তমলুকের সুবর্ণজয়ন্তী ভবনে তৃণমূলের কর্মীসভায় আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান করেন তমলুক পুরসভা এলাকার সিপিএমের শতাধিক নেতাকর্মীরা। তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন প্রার্থী দিব্যেন্দু অধিকারী। সভা শেষে তমলুক হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত একটি প্রচার মিছিলও সংগঠিত করে তৃণমূল।

এদিন প্রার্থী দিব্যেন্দু অধিকারী বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী একের পর এক মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে চলেছেন। সাধারণ মানুষ সব বুঝে গিয়েছে। মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে সরকার চালানো যায় তবে বেশিদিন নয়। মানুষ তাই মিথ্যা প্রতিশ্রুতির প্রতিবাদে পথে নেমেছে।

পাশাপাশি তিনি বামেদের সম্বন্ধে বলেন, ২০১১ সালের পর থেকে বামেরা তাদের অস্তিত্ব হারিয়ে ফেলেছে নন্দীগ্রাম, সিঙ্গুরের ঘটনার মধ্য দিয়ে। যেটুকু অবশিষ্ট ছিল তাও একে একে শাসকদলের উন্নয়নের জোয়ারে নিজেদের সামিল করে চলেছে।