কলকাতা: শুধু চিকিৎসক নয়। করোনা ভাইরাস মিলল আরও একজনের দেহে। রবিবারের সন্ধের রিপোর্টে দু’জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ মিলেছে।

এদিন সন্ধেয় নাইসেড থেকে যে রিপোর্ট এসেছে তাতে এই তথ্য জানা গিয়েছে। রবিবার এই রিপোর্ট আসার পর রাজ্যের মোট আক্রান্তের সংখ্যা হল ২০।

নাইসেড সূত্রের খবর একজন, একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৬৪ বছরের এক ব্যক্তি। তিনি ও প্রবল শ্বাসকষ্ট এবং একাধিক উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হন তার নমুনা পরীক্ষায় নোবেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মিলেছে।

এই প্রথম রাজ্যে কোনও চিকিৎসক আক্রান্ত হলেন করোনায়। এই খবর অত্যন্ত উদ্বেগের। কারণ সম্প্রতি, তিনি যাঁদের চিকিৎসা করেছেন, তাঁদের মধ্যেও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। মনে করা হচ্ছে কোনও রোগীর থেকেই তাঁর শরীরে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে। তাঁর রিপোর্টও এসেছে রবিবার সন্ধেয়।

আপাতত আলিপুর কমান্ড হাসপাতালেই আইসোলেশনে রাখা হয়েছে তাঁকে। তাঁর সংস্পর্শে কারা এসেছিলেন, তা চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। তাঁর আত্মীয়দেরও সতর্ক করা হয়েছে। তাঁর সঙ্গে কাজ করা অন্যান্য চিকিৎসকদের, রোগীদেরও সতর্ক করা হচ্ছে।

তিনি আলিপুর কমান্ড হাসপাতালের অ্যানাস্থেশিয়া বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বলে জানা গিয়েছে। গত ১৭ মার্চ দিল্লি থেকে কলকাতায় ফেরেন তিনি। এরপর ১৮ মার্চ থেকে হাসপাতালে কর্তব্যরত ছিলেন। কাজও করেছেন। সম্প্রতি, তিনি অসুস্থ হওয়ায় হাসপাতালেই তাঁর চিকিৎসা শুরু হয়। প্রথমটায় নিউমোনিয়া বলে মনে হলেও চিকিৎসকরা ঝুঁকি নিতে চাননি।

তাঁর লালারসের নমুনা পাঠানো হয় নাইসেডে। সেখান থেকেই রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে এদিন। তিনি যেহেতু সেনা হাসপাতালের চিকিৎসক, তাই সেনাবাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ রেখেই তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।