স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: জ্যোৎস্নারাতে আরও একবার নতুন ট্যালেন্টের আত্মপ্রকাশের সাক্ষী হয়ে রইল কলকাতার উপনগরী ইকোস্পেস৷ কলকাতার নাম করা তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা নেক্সভ্যাল ও বিখ্যাত পানীয় কোকাকোলার উদ্যোগে প্রত্যেকবার মহানগরী কলকাতার বুকে অনুষ্ঠিত হয় ‘কোকাকোলা মুনলাইট ফেস্টিভ্যাল’৷ অগস্ট মাসের পূর্ণিমা চাঁদের মিঠে আলোর রসনাইতে ভরিয়ে দিল বাংলা ব্যান্ড ‘দ্য গ্রোভার্জ’৷
কখনও হিন্দী রক৷ আবার কখনও জমকালো বাংলা গানে৷ শুক্রবার এই আসর সাজিয়ে বসেছিল ইকোস্পেসের ফোর-এ ব্লক৷ এখানে কর্মরত হাজার খানেক কর্মীর করতালি প্রেরণা জুগিয়েছে এই নতুন ট্যালেন্ট ‘দ্য গ্রোভার্জ’’কে৷ জমজমাটি গানের ছন্দে তাল মিলিয়ে অনুষ্ঠানকে আরও রঙিন করে তুলেছিল ইকো ইয়াংস্টাররা৷ হেভি মিউজিকের পাশাপাশি ছিল রোমান্সের হালকা টাচও৷ ডিজে লাইট, রক গান আর উদ্যম নাচের মাঝে ‘আশিকী টু’-এর ‘সুন রাহা হে না তু’ অনুষ্ঠানে যোগ করেছিল অন্যমাত্রা৷
সল্টলেকের জিডি ব্লক থেকে পথ চলা শুরু করে ‘কোকাকোলা মুনলাইট ফেস্টিভ্যাল’৷ প্রথম দু’বার সেখানে এই বিশেষ দিনটি পালন করা হলেও, পরে ঠিকানা বদলে চলে আসে কলকাতার উপপনগরী ইকোস্পেসে৷ অনুষ্ঠানের সঞ্চালকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তথ্য প্রযুক্তি সংস্থার কর্মীদের দৈনন্দিন জীবনের কাজের চাপে রিফ্রেশমেন্টের টোটকা হিসাবেও কাজ করে ‘কোকাকোলা মুনলাইট ফেস্টিভ্যাল’৷ এছাড়াও, এই বিশেষ অনুষ্ঠানে নতুন প্রতিভাকে মেলে ধরার সুযোগ পায় আগামীদিনের স্টাররা৷
লাকি ড্র কুপন কনটেস্ট এবারের মুনলাইট ফেস্টিভ্যালে  নতুন সংযোজন৷ উপস্থিত ইচ্ছুক দর্শকের অনেকেই অংশগ্রগন করেছিল এই বিভাগে৷ কোকাকোলার পক্ষ থেকে বিজেতারা পেয়েছেন এক লিটারের কোকের বোতল ও শান্তিনিকেতনের হোটেল রয়্যালে ১০% ছাড়ে ছুটি কাটানোর সুযোগ৷
সন্ধ্যা ছ’টা থেকে প্রায় সাড়ে সাতটা অবধি চলে ‘কোকাকোলা মুনলাইট ফেস্টিভ্যাল’ পর্ব৷ অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে ‘ম্যাশাপ’-এর তালে মঞ্চ কাঁপালেন ইকোস্পেসের কর্মীরা৷ আকাশের বাঁকা চাঁদে ভরে উঠেছিল ইকোস্পেস তথ্য-প্রযুক্তি শিল্পক্ষেত্রে৷

[metaslider id=159532]