মুম্বই: ফের বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ্যে এলো সুশান্ত সিং রাজপুত মামলায়। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি কে জানিয়েছেন যে সুশান্ত সিং রাজপুত এর দুটি ব্যাংক একাউন্ট থেকে অর্থ ট্রান্সফার করা হয়েছে তাঁর বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী একাউন্টে। ইডি সুশান্তের আর্থিক অবস্থা খতিয়ে দেখার চেষ্টা করছে। আর্থিক তছরুপের কোন সম্ভাবনা রয়েছে কি-না তাও দেখা হচ্ছে।

কিছুদিন আগেই সুশান্তের বাবা কে কে সিং রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন। ইডিও রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের মামলা করে এবং সম্প্রতি অভিনেত্রীকে তলব করা হয়েছে। কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাংক, এইচডিএফসি ব্যাংক এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকে সুশান্তের অ্যাকাউন্ট ছিল।

তিনটি ব্যাংকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি টাকা ছিল কোটাক মাহিন্দ্রা এইচডিএফসি ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে। এই দুটি ব্যাংক থেকে রিয়াকে টাকা ট্রান্সফার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইডি। মুম্বইয়ের একদম কেন্দ্রীয় এলাকায় রিয়া চক্রবর্তী ও তার পরিবারের দুটি প্রপার্টি রয়েছে, যেগুলি সম্প্রতি কেনা হয়েছে। ইডির তরফ থেকে এই দুই প্রপার্টির সমস্ত কাগজপত্র দেখাতে বলা হয়েছে রিয়াকে।

অন্যদিকে সুশান্তের একটি ফার্ম হাউস ছিল মুম্বইয়ের একদম শহরতলী পাভানিতে। এছাড়া মুম্বইয়ের গোরেগাঁও তে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ছিল তার। এছাড়া প্রয়াত অভিনেতা দুটি গাড়ি ছিল যার মধ্যে একটি গাড়ির লোন শোধ করছিলেন তিনি।

রিয়া চক্রবর্তী দাবি করেছেন তাকে হেনস্থা করার জন্য সুশান্তের বাবা এই মামলা দায়ের করেছেন। সুপ্রিমকোর্টের কাছে স্থগিতাদেশ চেয়ে ছিলেন আইনজীবী। কিন্তু সেই আবেদন খারিজ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। অন্যদিকে বিহারে হওয়া এফআইআর এর ভিত্তিতেই তদন্ত এখন সিবিআই এর হাতে। সিবিআই ইতিমধ্যেই রিয়া চক্রবর্তী ও তার পরিবার সহ মোট ৬ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর রেজিস্টার করেছে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।