স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কলকাতার হরিদেবপুরে এবার মোমোর আতঙ্ক ছড়াল ৷ শুভজিত দলুই নামে এক প্রাইভেট সংস্থার কর্মীর ফোনে মঙ্গলবার মোমো খেলার জন্য একটি মেসেজ আসে ৷

প্রথমে তিনি মনে করেন, তাঁর কোনও বন্ধু তাঁর সঙ্গে মজা করছে ৷ নিজের বন্ধু ভেবে সে বেশ কয়েকটি মেসেজ আদান প্রদান শুরু করে ৷ তবে কথার মাঝে তাকে বলা হয় এই গেম খেললে তাঁকে ২০ হাজার ডলার দেওয়া হবে ৷ তখন তাঁর সন্দেহ হয় ৷ তারপর হোয়াটস অ্যাপে তাঁকে তাঁর বাড়ির লোকেশনের বিষয় বেশ কিছু তথ্য দেওয়া হয় ৷

সেই মেসেজগুলি দেখে রীতিমত আতঙ্কিত হয়ে পড়েন শুভজিত ৷ তারপর তার সন্দেহ হয় এই মেসেজটি তাঁর বন্ধু নয় মোমো গেমের অ্যাডমিন পাঠাচ্ছে ৷ এই ঘটনায় পুলিশের দ্বারস্থ হবেন তিনি।

এদিকে, মঙ্গলবারই মোমো গেম খেলার মেসেজ গেল খোদ সিআইডি কর্তার ফোনে। ভবানী ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করে নিজেই জানালেন ডিআইজি সিআইডি অপারেশন নিশাদ পারভেজ। তবে তিনি জানান এই মেসেজ ফেক বলেই অনুমান তাঁদের। এমনকি তিনি বলেন এই মেসেজটা তার পরিচিত এক ব্যাক্তি পাঠিয়েছেন।

তিনি বলেন, ”এই মেসেজটার মাধ্যমে আমরা বোঝাতে চাইছি এই মেসেজ গুলি ভয় দেখাতে যে কেউ তৈরি করতে পারে।তবে সব মোমোর মেসেজ ফেক সেটাও বলছিনা।কিছু খেএ এই গুলো ফেক হতে পারে।” সেই কারনে সিআইডি কর্তারা বলেন এই ধরনের মেসেজ দেখে আতঙ্কিত হয়ে পরবেন না।আদৌ মোমো নামে কোনও খেলা আছে কিনা সেটাও তদন্ত করে দেখা হচছে।যে থানাগুলি তদন্ত করছে তারা তথ্যগুলি খতিয়ে দেখছেন।এখনও যে নম্বর পাআওয়া গিয়েছে সেগুলি বিদেশি নম্বর বলে সিআইডি কর্তারা জানান।সিআইডি কর্তাদের অনুমান এই মেসেজগুলি আতঙ্ক ছড়ানোর জন্য পাঠান হচ্ছে।