কলকাতা: কলকাতা: দীর্ঘ জল্পনার পর নতুন কোচের নাম ঘোষণা করল মোহনবাগান। বেশ কিছু স্প্যানিশ কোচের নাম তালিকায় ঘোরাফেরা করছিল কিছুদিন ধরেই। দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে ছিলেন জাতীয় দলের প্রাক্তন অন্তর্বর্তীকালীন কোচ তথা বেঙ্গালুরু এফসি’র প্রাক্তন কোচ অ্যাশলে ওয়েস্টউড। তবে সবাইকে পিছনে ফেলে বাগানের নতুন কোচ হলেন স্প্যানিশ কিবু ভিকুনা।

বাগানের কোচ হওয়ার আগে বছর সাতচল্লিশের ভিকুনা পোল্যান্ডের প্রথম ডিভিশন একটি ক্লাবের কোচের দায়িত্বে সামলেছেন। ইস্টবেঙ্গলের পর মোহনবাগানও স্প্যানিশ কোচে ভরসা রাখায় ময়দানে আগামী মরশুমে দুই স্প্যানিয়ার্ডের মগজাস্ত্রের লড়াই হবে৷ বিশেষ করে ডার্বিতে একে অপরকে টক্কর দেওয়ার লড়াই হবে দুই স্প্যানিয়ার্ডের মধ্যে৷

গত মরশুমে ইস্টবেঙ্গল কোচের দায়িত্ব সামলেছেন আলেজান্দ্রো গার্সিয়া৷ এই স্প্যানিশের কোচের অধীনে আইলিগে রার্নাস হয়েছে লাল-হলুদ৷ এর ফলে গার্সিয়ার দু’বছরের চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়েছে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা৷ এবার সেই পথেই হাঁটল মোহনবাগানও৷ খালিদ জামিলের উত্তরসূরি হিসেবে বাগানে কোচিং করাবেন ৪৭ বছরের স্প্যানিশ ভিকুনা৷ উয়েফা প্রো-লাইলেন্স ধারী ভিকুনাকে প্রধান কোচের দায়িত্ব দিয়ে মরশুমের প্রথম থেকেই মাঠে নামবে গঙ্গাপাড়ের এই শতাব্দী প্রাচীন ক্লাব৷

কোচিংয়ে যথেষ্ট অভিজ্ঞতা রয়েছে ভিকুনার৷ স্পেন ও পোল্যান্ডে কোচিং করিয়েছেন তিনি৷ ২০১২-১৩ মরশুমে পোলিশ লিগ ও পোলিশ কাপ জিতেছেন ভিকুনা৷ মোহনবাগানের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, ‘আমরা কিবুর সঙ্গে কথা বলেছে৷ মোহনবাগানের কোচের দায়িত্ব পেয়ে ও দারুণ খুশি এবং চ্যালেঞ্জ নেয়ার ব্যাপারে উচ্ছ্বসিত৷ কিবু অত্যন্ত দক্ষ এবং অভিজ্ঞ কোচ৷ তরুণদের তুলে আনার ক্ষেত্রে ওর সুনাম রয়েছে৷ মোহনবাগানের মতো ওর ফুটবল দর্শন রয়েছে৷ এছাড়াও ট্রেনিং ও ম্যাচের ক্ষেত্রে নতুন টেকনোলজি ব্যবহার করে থাকে৷’

২০১৫-১৬ মরশুমে পোলিশ সুপার কাপ জয়ী কোচিং দলে ছিলেন ভিকুনা৷ এছাড়াও ১৯৮৬ বিশ্বকাপে পোল্যান্ডের কোচ জ্যান আর্বানের সহকারী হিসেবে দায়িত্ব সামলেছেন তিনি৷ এছাড়াও উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্লে-অফ রাউন্ডে জয়ী কোচিং টিমের সদস্য ছিলেন ভিকুনা৷ বেশ কয়েকজন নামী ফুটবলার যেমন রাহুল গার্সিয়া, সিজার অ্যাজপিলিকুয়েতা, নাচো মনরিয়েল এবং জাভি মার্টিনেজকে কোচিং করিয়েছেন সদ্য মোহনবাগানের কোচ হওয়া এই স্প্যানিশ কোচ৷