সুভীক কুন্ডু, কলকাতা: ছয় বনাম আটের লড়াই৷ মরশুমের প্রথম আই লিগ ডার্বির চিত্রটা ঠিক এইরকম৷ আবেগের ডার্বিতে দুই প্রধানকে এভাবে পিছিয়ে থেকে শুরু করতে শেষ কবে দেখা গিয়েছে মনে পড়ে না৷

হারের হ্যাটট্রিকের পর গোকুলামের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ইস্টবেঙ্গল৷ প্রতিপক্ষ মোহনবাগানের সেখানে ঘরের মাঠে শেষ দুই ম্যাচে জয় নেই৷ চার্চিলের কাছে হারের পর চেন্নাইয়ের কাছে এগিয়ে থেকে ড্র৷ দুই দলই লিগের পয়েন্ট টেবিলে এখন প্রথম পাঁচে নেই৷ দুই শিবিরের কাছে ডার্বি এখন আর তাই বাঙালির আবেগ কিংবা ইগোর লড়াই নয়৷ দুই শিবিরেই চলছে এখন অঙ্কের খেলা৷

১৬-র ডার্বিই এখন অনেক তালার চাবি খুলে দিয়ে পারে৷ মোক্ষম তিনটে পয়েন্ট পকেটে এলেই পাল্টে যেতে পারে লিগের চিত্র৷ ছয় ম্যাচে দুই দলের ঝুলিতে মাত্র ৯ পয়েন্ট৷ রবি সন্ধ্যার ডার্বি জিতলে পয়েন্ট দাঁড়াবে ১২৷ সেক্ষেত্রে মিনার্ভাকে সরিয়ে ময়দানের দুই প্রধানের কোনও একজন ফের প্রথম পাঁচে ঢুকে পড়ার সুযোগ পাবে৷ সেখান থেকে লিগে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া দুই প্রধান৷

আরও পড়ুন- কালো পর্দার আড়ালে ডার্বির মহড়া

এবার আসা যাক দলের প্রসঙ্গে৷ বাগান শিবিরে জোর কা ঝটকা সনির না থাকা৷ হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট তাই দু’সপ্তাহের জন্য মাঠে নামা হচ্ছে না হাইতিয়ানের৷ আই লিগের শেষ ডার্বিতেও চোটের জন্য সনি দলের বাইরে ছিলেন৷ সেবার সনির অনুপস্থিতিতে বাগান তরীর চালক ছিলেন ডিকা৷ এবার ডিকার পাশে রয়েছে হেনরি৷ দুইয়ের জুটিতে কলকাতা লিগের খরা কাটিয়েছে বাগান৷ এবার আই লিগে ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াইয়েও ক্যামেরুন-উগান্ডান জুটিই বাগানের প্রধান ভরসা৷ লাল-হলুদ কোচও ম্যাচের ২৪ ঘন্টা আগে বাগানে আক্রমণভাগকে এগিয়ে রাখলেন৷ এদিন লাল-হলুদ কোচ আলেজান্দ্রো বলেন, ‘মোহনবাগানের আক্রমণ আমাদের চেয়ে শক্তিশালী৷ সতর্ক থাকতে হবে৷’

বাগানে নেই সনি, আর ইস্টবেঙ্গলে নেই এনরিকে৷ পাঁজরের চোটের জন্য ডার্বি খেলা হচ্ছে না মেক্সিকানের৷ মাঠমাঝে নেই আমনার মতো নির্ভরযোগ্য ফুটবলার৷ চোট সমস্যার পর তাঁর সঙ্গে হ্যান্ডসেক সেরে ফেলেছে ইস্টবেঙ্গল৷ বদলে আলেজান্দ্রোর আস্তিনে এবার নতুন অস্ত্র স্যান্টোস কোলাডো৷ বাগান কোচ শংকর আবার তরুণ ছটফটে কোলাডোকে সারপ্রাইজ প্যাকেজ মানছেন৷ ডার্বির মহড়া শেষে শিল্টনদের হেডস্যার জানিয়ে দেন, ‘নতুন ফুটবলার অবশ্যই চমক দিতে পারে৷’ সব উত্তর পাওয়া যাবে রবি সন্ধ্যায়৷