কলকাতা: শহরের অন্যতম দুই প্রধানের একটি হল মোহনবাগান৷ তাঁদের প্রতীকও পালতোলা নৌকা৷ কিন্তু জানেন কী সত্যিই একটি আস্ত জাহাজ রয়েছে শতাব্দী প্রাচীন ক্লাবটির নামে৷ সেটি দেখতেও দলের জার্সির রঙ সবুজ-মেরুনে৷
এমনই একটি ছবি দেখতে পাওয়া গিয়েছে ফেসবুকে দলের একটি ফ্যান পেজে৷ সেখানেই গোয়ায় নোঙর করা জাহাজটির একটি ছবিও পোস্ট করেছেন জনৈক মোহনবাগান সমর্থক৷

দেখুন সেই ছবি:

mohunbagan

অন্যদিকে, এএফসি কাপে, সাউথ চায়নার বিরুদ্ধে ৪-০ গোলে জয়ের পর আবারও আইলিগের লড়াইতে ফিরছে মোহনবাগান৷ রবিবার বারাসত স্টেডিয়ামে তাঁদের প্রতিপক্ষ মুম্বই এফসি৷ এখনও অবধি আইলিগে অপরাজিত বাগান তাঁদের শেষ ১৪টি ম্যাচের ১৩টিতে জিতে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে৷ ফর্মে রয়েছেন কর্মেল গ্লেন, কাটসুমি, জেজে, সনি নর্ডিও৷ তবে ফেডারেশনের নির্বাসন থাকায় ওইদিন রিজার্ভ বেঞ্চে থাকবেন না আইলিগ জয়ী কোচ সঞ্জয় সেন৷ কিন্তু তাঁর বদলে রবিবার বারাসত স্টেডিয়ামে হাজির থাকবে হাজারও সঞ্জয়, এমনটাই খবর৷ ওইদিন মোহন সমর্থকরা এআইএফএফের শাস্তির বিরুদ্ধে দলের কোচের মুখোশ পরে খেলা দেখতে আসবেন বলে জানী গিয়েছে৷ এখন দেখার স্বপ্নের ফর্মে সবুজ-মেরুন দল খালিদ জামিলের ছেলেদের বিরুদ্ধেও জয়ের ধারা বজায় রাখতে পারে কিনা?

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।