কলকাতা: ‘এই হার শুধু কর্তা বা কোচের ব্যর্থতা নয়, এটা টিমের ব্যর্থতা৷ দায়টাও সকলকেই নিতে হবে৷’ বাগান কোচ সঞ্জয় সেনের পদত্যাগের পর এমনটাই বললেন বাগান কর্তা দেবাশীষ দত্ত৷

তবে লিগে এখনও বাগান ঘুরে দাঁড়াতে পারবে বলে আশাবাদী দেবাশীষ৷ একদিন ছুটির পর বৃহস্পতিবার ফের অনুশীলন করবে মোহনবাগান৷ নতুন কোচ বাছাই-এর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত বুধবারের মধ্যেই হয়ে যাবে বলে জানান দেবাশীষ৷

জানা গিয়েছে, কোচের পদত্যাগের পর  বাগান কর্তাদের পক্ষ থেকে সঞ্জয় সেনকে কোনও রকম অনুরোধ করা হয়নি৷ বাগান কর্তা দেবাশীষ বলেন, ‘উনি নিজে থেকে দায়িত্ব ছাড়লেন, মানষিক ভাবে উনি চাইছেন না কোচিং করাতে৷ তাই ক্লাব তাঁকে জোর করেনি৷’ তিনি আরও বলেন , ‘বাগানের সেট টিম আইএসএল-এ চলে চাওয়াতেই ক্ষতি হয়েছে৷’

তবে বাগান কোচ সঞ্জয়ের পাশে থাকছেন কর্তারা৷ দেবাশীষবাবু বললেন, ‘কোচের ভাল দিক, খারাপ দিক, দুইই থাকে৷ সঞ্জয় সেন ক্লাবকে একাধিক ট্রফি দিয়েছেন৷ তাই তাঁর পদত্যাগের দিনে সমালোচনা করা উচিৎ নয়৷ সাড়ে তিন বছরে তাঁর সাফল্যটাই আমরা মনে রাখতে চাই৷’

 

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।