গুয়াহাটি: ডার্বি হারের পর মঙ্গলবার লাজং এফসির বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচে নামছে গতবারের আইলিগ জয়ী দল মোহনবাগান৷ কিন্তু মাঠে নামার আগে জোড়া ধাক্কায় জর্জরিত বাগান শিবির৷ হেড কোচ সঞ্জয় সেনের পর ডার্বিতে লাল কার্ড দেখে আগামী দু’ম্যাচের জন্য নির্বাসিত সহকারী কোচ শংকরলাল চক্রবর্ত্তী৷ এর মধ্যেই আবার ফিফা ও এএফসির শাস্তির খাঁড়া নামল বাগানের ওপর৷ বিশ্ব ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা ও এশিয়া ফুটবল কনফেডারেশনের তরফ থেকে আর্থিক জরিমানা করা হল গঙ্গাপাড়ের ক্লাবটিকে৷

বছরের শুরুতে ক্লাবের হয়ে খেলতে আসা ব্রাজিলীয় ডিফেন্ডার গুস্তাভো দ্য সিলভা’র বেতন বকেয়া রাখার অভিযোগে ফিফা মোহনবাগানকে ৫৬ লক্ষ টাকার জরিমানা করেছে৷ তাঁদের নির্দেশ অনুযায়ী, ক্লাবকর্তাদের আগামী পাঁচদিনের মধ্যে গুস্তাভোকে তাঁর প্রাপ্য ২৪ লক্ষ টাকা ও জরিমানার টাকা দিয়ে দিতে হবে৷ পাশাপাশি এএফসিও মোহনবাগানকে ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৮৫ লক্ষ টাকা(১৩ হাজার ডলার) জরিমানা করেছে৷ কারণ হিসেবে তাঁরা জানিয়েছে, চলতি এএফসি কাপে ইয়াঙ্গন ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে মোহনবাগান ফুটবলারদের জার্সিতে লোগো ঠিক জায়গায় ছিল না এবং মাজিয়া স্পোর্টস ক্লাবের বিরুদ্ধে ম্যাচের ভিডিও রেকর্ডিং সঠিক সময়ে জমা দেয়নি মোহনবাগান৷ ফলে এই দুই ঘটনার শাস্তিস্বরূপ মোট তেরো হাজার ডলার জরিমানা করা হয়েছে শতাব্দী প্রাচীন ক্লাবটিকে৷

অন্যদিকে, লাজং এমনকি শিবাজিয়ান্সের বিরুদ্ধে ম্যাচেও পাওয়া যাবে না ক্লাবের প্রাণভোমরা সনি নর্ডিকে৷ এছাড়া রিজার্ভ বেঞ্চে থাকবেন না শংকরলাল চক্রবর্ত্তীও৷ সঞ্জয় সেনের শাস্তির মেয়াদ যেহেতু লাজং ম্যাচ অবধি তাই শিবাজিয়ান্স ম্যাচে চেতলার বাসিন্দা ডাগআউটে বসতে পারবেন৷ অর্থাৎ ইস্টবেঙ্গল ম্যাচে রেফারির সঙ্গে তর্ক করে লাল কার্ড দেখার পর কোচিং করানো ফিজি গার্সিয়াকে ফের একবার গোটা ম্যাচের জন্য মোহনবাগানের দায়িত্ব নিতে হবে৷এখন দেখার জেজে-কাটসূমিরা লাজং ম্যাচ জিতে আইলিগ জয়ের রাস্তা খোলা রাখতে পারেন কিনা?

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।