কলকাতা: বিএসএস, ভবানীপুরের বিরুদ্ধে জয়ের পর বৃহস্পতিবার কল্যাণীতে জয়ের হ্যাটট্রিকের খোঁজে কিবু ভিকুনার মোহনবাগান। ঘরের মাঠে জর্জ টেলিগ্রাফকে হারিয়ে লিগের শীর্ষে উঠলেও তা ছিল সাময়িক। ইস্টবেঙ্গলকে হারিয়ে ফের লিগের মগডালে জহর দাসের পিয়ারলেস। কল্যাণীতে জয়ের হ্যাটট্রিক মানেই পিয়ারলেসকে সরিয়ে ফের লিগে শীর্ষেস্থানের দখল নিতে পারবে সবুজ-মেরুন। স্বাভাবিকভাবেই টানা জয়ে চনমনে বাগান শিবির এরিয়ানের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার তিন পয়েন্ট ছাড়া কিছু ভাবতে নারাজ।

লিগের প্রথম দু’ম্যাচে পা হড়কালেও ধীরে ধীরে জয়ের ছন্দ খুঁজে পেয়েছে কিবুর দল। জর্জ টেলিগ্রাফের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে গত ম্যাচে বিধ্বংসী ফুটবল উপহার দিয়েছেন চামোরোরা। সেই ছন্দ ধরে রেখেই দুর্বল এরিয়ানের বিরুদ্ধে জয়ের খোঁজে মোহনবাগান। উইনিং কম্বনেশনে খুব বেশি বদল আনার পক্ষপাতী নন বাগানের স্প্যানিশ কোচ। তবে মাঝমাঠে জোসেবা বেইতিয়ার দলে ঢোকার সম্ভাবনা প্রবল। সেন্ট্রাল ডিফেন্সে কিমকিমা-ফ্রান মোরান্তের সঙ্গে সাইডব্যাক হিসেবে চুলোভা ও গুরজিন্দারের খেলার সম্ভাবনাই বেশি। আপফ্রন্টে সালভা চামোরোর সঙ্গে ভিপি সুহের।

৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত লিগে চার নম্বরে মোহনবাগান। সমসংখ্যক ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে আটে এরিয়ান। তবে আপাত দৃষ্টিতে দুর্বল মনে হলেও প্রতিপক্ষকে হালকা-ভাবে নিতে নারাজ বাগান কোচ। বাকি দু’প্রধানের সঙ্গে তাদের খেলা খুঁটিয়ে দেখে তবেই এই ম্যাচের ঘুঁটি সাজিয়েছেন কিবু। পাশাপাশি কল্যাণীর মাঠের প্রশংসা করে পরিষ্কার তিন পয়েন্ট তুলে আনার ডাক দিয়েছেন তিনি। নিজেদের স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারে তিন পয়েন্ট কোনও কঠিন বিষয় নয় বলেই মনে করেন স্প্যানিয়ার্ড।

একইদিনে পিয়ারলেস ম্যাচের কালো অধ্যায় কাটিয়ে ঘরের মাঠে কালীঘাট এমএসের মুখোমুখি ইস্টবেঙ্গল। আইএফএ এক ম্যাচ সাসপেন্ড করায় ডিকা, মেহতাবকে ছাড়াই এদিন দল সাজাতে হবে আলেজান্দ্রোকে। লিগ টেবিলে ১১ নম্বর দলের বিরুদ্ধে নামার আগেরদিন প্রথামাফিক দলের অনুশীলন রাখেননি লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ। তবে পরিস্থিতি কঠিন হলেও জয়ের সরণিতে ফিরে লিগে অবস্থান মজবুত করাই লক্ষ্য ইস্টবেঙ্গলের।