কলকাতা: শতবর্ষের ইস্টবেঙ্গল না-পারলেও শতাব্দী প্রাচীন মোহনবাগান মুখ রক্ষা করল কলকাতার৷ গোকুলাম কেরলার কাছে হেরে লাল-হলুদ শিবির ডুরান্ডের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিলেও রিয়াল কাশ্মীরকে হারিয়ে এশিয়ার প্রাচীনতম টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠল সবুজ-মেরুন বাহিনী৷ এই নিয়ে রেকর্ড ২৯ বার ডুরান্ড কাপের খেতাবি লড়াইয়ে জায়গা করে নিল মোহনবাগান৷

যুবভারতীতে শেষ চারের লড়াইয়ে মোহনবাগান ৩-১ গোলে পরাজিত করে রিয়াল কাশ্মীরকে৷ নির্ধারিত সময়ে স্কোরলাইন ১-১ গোলের সমতায় দাঁড়িয়ে থাকায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে৷ এক্সট্রা টাইমে জোড়া গোল করে বাগানের জয় নিশ্চিত করেন পরিবর্ত হিসাবে মাঠে নামা ভিপি সুহের৷

আরও পড়ুন: মরশুম শেষেই তুলে রাখতে পারেন বুটজোড়া, ইঙ্গিত রোনাল্ডোর

সুপার সাব সুহেরের জোড়া গোল ছাড়া মোহনবাগানের হয়ে অপর গোলটি করেন সালভা চামোরো৷ দ্বিতীয়ার্ধের সংযোজিত সময়ে রিয়াল কাশ্মীরকে সমতায় ফেরান ক্রিজো৷ পরে এক্সট্রা টাইমে যুবভারতীর গ্যালারিকে সম্মোহিত করেন সুহের৷

ম্যাচের ৪২ মিনিটে গুরজিন্দরের পাস থেকে অনবদ্য নিয়ন্ত্রণে রিয়াল কাশ্মীরের জালে বল জড়ান চামোরো৷ নির্ধারিত সময়ের একেবারে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লিড বজায় রাখে মোহনবাগান৷ তবে চার মিনিটের ইনজুরি টাইমে হিসাবটা গোলমাল হয়ে যায় তাদের৷ ৯০+৩ মিনিটে ম্যাচে সমতা সূচক গোল করেন ক্রিজো৷

আরও পড়ুন: প্রাক্তনী উবেদের দস্তানায় থমকে গেল ইস্টবেঙ্গলের ডুরান্ড জয়ের স্বপ্ন

এক্সট্রা টাইমের শুরুতেই অবশ্য পুনরায় লিড নিয়ে নেয় মোহনবাগান৷ ৯২ মিনিটে ম্যাচে নিজের প্রথম ও দলের হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন ৬৮ মিনিটে জেসুরাজের পরিবর্ত হিসাবে মাঠে নামা সুহের৷ তাঁকে গোলের পাস বাড়ান ফ্রান গঞ্জালেজ৷ ১১২ মিনিটে গঞ্জালেজের পাস থেকেই মোহনবাগানের হয়ে তৃতীয় গোল সুহেরের৷ আগামী ২৪ অগস্ট ডুরান্ডের ফাইনালে মোহনবাগান মাঠে নামবে গোকুলাম কেরালার বিরুদ্ধে৷