স্বাগত ঘোষ: কোচের দায়িত্ব নেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই সবুজ-মেরুনকে জয়ের সরণিতে ফেরালেন খালিদ জামিল৷ জয় দিয়ে বাগানে অভিযান শুরু করলেন লাল-হলুদের প্রাক্তন কোচ৷ শঙ্করলালের উত্তরসূরি হিসেবে সোমবার খালিদের নাম ঘোষণা করেছিলেন বাগান কর্তারা৷ তবে দলের দায়িত্ব নিয়েছিলেন মঙ্গলবার৷ আর বুধবার যুবভারতীতে খালিদের কোচিংয়ে মিনার্ভা পঞ্জাবকে ২-০ হারাল মোহনবাগান৷

‘কিক অফ’-এর পর কয়েক সেকেন্ড অতিক্রান্ত। যথারীতি টানেল থেকে বেরিয়ে এলেন বাগানের নয়া হেডস্যার। অর্থাৎ দ্বিতীয় ইনিংসেও বদলালো না চিত্রটা। তবে জামিলের ছোঁয়ায় বদলে গেল মোহনবাগান। ময়দানে তাঁর দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম ম্যাচে সসম্মানে উত্তীর্ণ ‘তুকতাক’ কোচ। খালিদের কোচিংয়ে মিনার্ভা পঞ্জাবকে হারিয়ে আই লিগে জয়ে ফিরল সুবজ মেরুন।

মরশুমের মাঝে দায়িত্ব নিয়ে আই লিগ জয়ী কোচ নতুন ক্লাবের জন্য কী টার্গেট সেট করেছেন জানা নেই, তবে এদিন একাদশে পাঁচ-পাঁচটি বদল এনে দলকে জয়ে ফেরালেন খালিদ৷ পজেশনাল ফুটবলে প্রথমার্ধে ম্যাচে আধিপত্য বিস্তার করার চেষ্টা করে বাগান। সেই অর্থে শিলটনকে সেভাবে পরীক্ষায় ফেলতে পারল না ফরোয়ার্ডে বিদেশীহীন মিনার্ভা।

সনি নির্ভর মোহনবাগানের মাঝমাঠ প্রথমার্ধের বেশিরভাগ সময়টা হানা দিয়ে গেল বিপক্ষের অর্ধে। ২৯ মিনিটে সনি নর্ডির বাড়ানো বল ধরে আগুয়ান ডিকাকে বক্সে ফাউল করে বসেন তৌরে। ৩০ মিনিটে পেনাল্টি থেকে বাগানকে এগিয়ে দিতে ভুল করেননি ওমর আল হুসেইনি। এরপর সুযোগ এসেছিল আজহারঊদ্দিনের কাছে। এক্ষেত্রে তাঁর হেড বার উঁচিয়ে মাঠের বাইরে যাওয়ায় প্রথমার্ধে এক গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যান বাগান ফুটবলাররা।

দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হতেই অনেক বেশি ওপেন ফুটবল দুই দলেরই। ব্যস্ত থাকতে হল শিলটনকেও। তবে খালিদের নয়া রক্ষণ কম্বিনেশন টপকে এগিয়ে যেতে পারেনি পঞ্জাবের দলটি। উলটে ৬৯ মিনিটে ম্যাজিশিয়ন সনি-ডিকা যুগলবন্দিতে ফের একবার কেঁপে গেল মিনার্ভা রক্ষণ।

নর্ডির ঠিকানা লেখা থ্রু থেকে গোল করে গোলখরা কাটান দিপান্দা ডিকা। বাগানের ইতিবাচক মাঝমাঠ এরপর সুযোগ পায় ৭১ মিনিটে। সনির শট দুরন্ত সেভ করেন মিনার্ভা গোলরক্ষক। যদিও তার পর ডিকার গোলে আগেই নিশ্চিত হয়ে যায় বাগানের তিন পয়েন্ট।

সবমিলিয়ে জয় দিয়েই ময়দানে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করলেন মুম্বাইয়ের জামিল। যদিও নতুন বছরে প্রথম জয়ে লিগ টেবলে অবস্হার পরিবর্তন হল না গঙ্গাপাড়ের ক্লাবের। ১২ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে ছ’ নম্বরেই রইল মোহনবাগান৷ ১০ ম্যাচে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে বাগানের ঠিক উপরে রয়েছে ইস্টবেঙ্গল৷ আর ১১ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্খানে চেন্নাই সিটি৷