স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এই মুহূর্তে নিজের ও বাংলার জন্য আপনি সবথেকে ভালো যেটা করতে পারেন, তা হল মাস্ক পড়ে বাড়িতে থাকুন। রাজ্যপালকে কার্যত এই ভাষাতেই আক্রমণ করলেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

করোনা পরিস্থিতিতে নবান্ন-রাজভবন সংঘাত চরমে পৌঁছেছে। রাজ্যে রেশন দুর্নীতি থেকে করোনায় মৃতের সংখ্যা গোপন করা, একাধিক অভিযোগে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সরব হচ্ছেন রাজ্যপাল।

রাজ্যপালের আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শনিবার তাঁকে ১২ পাতার চিঠি দিয়েছেন । তাতে তিনি রাজ্যপাল পদটির সাংবিধানিক সীমাবদ্ধতার কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন । মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, যে ভাষায় তাঁকে আক্রমণ করেছেন ধনকড়, স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে আর কোনও রাজ্যপাল এমন আচরণ করেননি।

চিঠিতে রাগের চেয়ে বেশি কষ্টই পেয়েছেন বলেই মন্তব্য নেত্রীর। ১৩ পাতার ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, রাজ্যপালের এই ভাষা ব্যবহার একেবারেই কাম্য নয়, রাজ্যপালের কাছে সহযোগীতাই কামনা করি।” এই ভাষা অন্যান্য মন্ত্রীদের কাছেও যে অপমানজনক তাও চিঠিতে জানিয়েছেন মমতা।

মুখ্যমন্ত্রীর এই কড়া চিঠির পরই রাজ্যপালকে টুইট আক্রমণ করেছেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। তিনি লিখেছে,”রাজ্যপাল সাহেব, আপনি ভুল মানুষকে আক্রমণ করার জন্য বেছে নিয়েছেন। এই মুহূর্তে নিজের ও বাংলার জন্য আপনি সবথেকে ভালো যেটা করতে পারেন, তা হল মাস্ক পড়ে বাড়িতে থাকুন।”

এর আগেও লকডাউনের মধ্যে রাজ্যপালকে বিঁধে টুইট করেছিলেন মহুয়া। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে অনুরোধের সুরে মহুয়া লিখেছিলেন, ‘মোদী-শাহ একটা উপকার করুন। এই ভদ্রলোককে দিল্লি নিয়ে যান ও লকডাউনে রাখুন।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ