স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পাঁচরাজ্যে লোকসভা ভোটে বিজেপির ভরাডুবির পরদিনেই শহরে এলেন আরএসএস প্রধান মোহন ভগবত৷ ঝটিকা সফরে কলকাতার বেশ কয়েকজনের বাড়িতেও যান আরএসএস প্রধান৷ সুত্রের খবর সল্টলেকে তপন চক্রবর্তী, রমেশ সারগোলির নামের দুজনের সঙ্গে দেখা করেন তিনি৷ তবে পুরো বিষয়টিতেই সারাদিন ধরে ভালোমত গোপনীয়তা রক্ষা করল রাজ্য আরএসএস৷

মোহন ভগবত শহরে থাকাকালীন সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখলেন বাংলা আরএসএসের কার্যকর্তারা৷ বিশেষজ্ঞদের মতে কোনরকম অপ্রীতিকর বিতর্ক এড়াতেই এই ব্যবস্থা নিয়েছে সংঘ৷ যদিও রাজ্যের এক আরএসএস নেতা কয়েকদিন আগেই জানিয়েছিলেন সরসঙ্ঘচালক প্রতি বছরই আসেন৷ সাংগঠনিক কাজকর্ম দেখাশোনা করেন৷ এবারেও তিনি কলকাতার কিছু বুদ্ধিজীবিদের সঙ্গে দেখা করবেন৷ তবে পুরোটায় ঘরোয়া আয়োজন৷

রথযাত্রা নিয়ে রাজ্য বিজেপি বনাম শাসক দলের লড়াই গড়িয়েছে আদালত অবধি৷ রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে রথযাত্রা নিয়ে চরম অসহযোগীতার অভিযোগ করেছে বিজেপি৷ দলের তরফ থেকে ১৮টি চিঠি দেওয়া সত্ত্বেও রাজ্য সরকার কোনও উত্তর দেয়নি৷ রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর চিঠিরও জবাব দেয়নি রাজ্য৷

এরকম অবস্থায় বাংলায় আরএসএস প্রধানের সফর যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ৷ আরএসএসের পক্ষে যায় বলা হোক না কেন বিশেষজ্ঞদের মতে লোকসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে রাজ্যে বিজেপি এবং সংঘের কর্মীদের মনোবল চাঙ্গা করতেই এই সফর৷

সুত্রের খবর অনুসারে জাস্টিস শুভ্র কমল মুখোপাধ্যায়, অ্যাডভোকেট অনিন্দ্য মিত্রের সঙ্গেও দেখা করে বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন মোহন ভগবত৷ গোয়েন্দা সুত্রে খবর দেশে এবং বিদেশে প্রতিষ্ঠিত পুরনো সংঘীদের সঙ্গে দেখা করে তাদের নতুন করে বিভিন্ন কাজের দায়িত্ব নেওয়ার কথাও বলেন আরএসএস প্রধান৷ এর মধ্যে ফান্ড রেইজিংয়ের মত বিষয়ও রয়েছে বলে সুত্রের খবর৷ তবে কী জন্যে এই ফান্ড-রেইজিং তা অবশ্য জানা যায়নি৷ বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে রাম মন্দিরের নির্মানের জন্যেও এই ফান্ড হতে পারে৷ সন্ধ্যে নাগাদ কলকাতা ছেড়ে নাগপুরের উদ্দেশ্যে উড়ে যান মোহন ভগবত৷

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।