কলকাতা: ইস্টবেঙ্গলের পর এবার লক্ষ্মীলাভ মহামেডানে। সোজা কথায় বলতে গেলে লাল-হলুদের পর ইনভেস্টর পেয়ে গেল সাদা-কালো শিবির। ফুটবল অনুরাগীদের খানিকটা চমকে দিয়েই যুক্তরাজ্যের একটি স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধতে চলেছে মহামেডান স্পোর্টিং।

ক্লাব সূত্রে খবর তেমনটাই। জানা গিয়েছে ক্লাব সচিব ওয়াসিম আক্রামের উদ্যোগেই গোটা ঘটনাটি সম্ভবপর হয়েছে। জানা গিয়েছে যুক্তরাজ্যের ওই কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি মোতাবেক ৫১ শতাংশ শেয়ার থাকবে ক্লাবের হাতেই। বাকি ৪৯ শতাংশ শেয়ার থাকবে যুক্তরাজ্যের কোম্পানির হাতে। শেয়ার ছাড়ার শতকরা এই হিসেবটি বাস্তবায়িত হলে সেটা যে যথেষ্ট ঈর্ষনীয় হবে সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

ক্লাবের তরফ থেকে কোম্পানির নাম এখনও জানানো না হলেও জানা গিয়েছে ১৭ সেপ্টেম্বর আনুষ্ঠানিক ঘোষণার মধ্যে দিয়ে কোম্পানির নাম জানানো হবে। ক্লাবের এক শীর্ষকর্তা জানিয়েছেন ইউকে’র ওই স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির একটি শাখা অফিস রয়েছে রাজধানী দিল্লিতে।

ওই দিল্লির অফিসের মাধ্যমেই কলকাতা প্রধানের ইনভেস্টর হয়ে আসার যাবতীয় আলোচনার অগ্রগতি হয়। মহামেডান ক্লাব-কর্তাদের উপস্থিতিতে দিল্লির ওই অফিসেই ক্লাব-কোম্পানি গাঁটছড়া বাঁধার ব্যাপারে চূড়ান্ত আলোচনা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ক্লাবের তরফ থেকে জানা গিয়েছে ক্লাবকে আইএসএল খেলানোর লক্ষ্য নিয়েই ক্লাবে লগ্নি করতে সম্মত হয়েছে কোম্পানিটি।

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় ডিভিশন আই লিগের জন্য আপাতত কল্যাণীতে আবাসিক শিবিরে মগ্ন সাদা-কালো শিবির। দ্বিতীয় ডিভিশন আই লিগ জয়ের কথা ভেবে এবার দারুণ দল গড়েছে মহামেডান স্পোর্টিং। উইলিস প্লাজা, কিংসলের মতো তারকা বিদেশীদের পাশাপাশি দেশীয় ব্রিগেডের সমন্বয়ে আই লিগের প্রিমিয়র ডিভিশনে উন্নীত হওয়ার অপেক্ষায় সাদা-কালো শিবির।

এভাবে ধাপে-ধাপে উন্নীত হয়েই আইএসএল বৃত্তে ঢুকে পড়ার লক্ষ্যে মহামেডান। আর সেই লক্ষ্যেই ক্লাবে লগ্নিকারীর আগমণ। অন্যদিকে কল্যাণী থেকে সরছে আই লিগের দ্বিতীয় ডিভিশনের ম্যাচ।

ভালো হোটেলের অভাবেই কল্যাণী থেকে আই লিগ দ্বিতীয় ডিভিশনের ম্যাচ সরে আসছে যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে। ৫টি দলের মধ্যে মহামেডান ছাড়াও কলকাতা থেকে আই লিগ দ্বিতীয় ডিভিশনে প্রতিনিধিত্ব করছে ভবানীপুর ক্লাব। ৮ অক্টোবর থেকে শুরু হবে টুর্নামেন্ট।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।