কেপটাউন: শিবলিঙ্গের উপর ফুল দিয়ে লেখা হ্যাপি নিউ ইয়ার ২০১৮৷ নতুন বছরে সেই ছবিই পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফ্যানেদের নিউ ইয়ারের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন ভারতীয় পেসার মহম্মদ শামি৷ হিন্দু দেবতার ছবি পোস্ট করায় বিষয়টি অবশ্য ভাল চোখে দেখেনি তাঁর ভক্তরা৷ নতুন বছরের এই শুভেচ্ছা পোস্টটি ঘিরে শুরু হয় বিতর্ক৷

শিবলিঙ্গের ছবি টুইট করায় নেটিজেনের রোষের মুখে পড়তে হয় তাঁকে৷ শুরু হয় কুরুচিকর ট্রোলিং৷ হিন্দু ধর্মের দেবতার ছবি প্রকাশ করায় ঘটনাটিকে ঘোর ইসলাম পরিপন্থি বলে ব্যাখ্যা করেন শামি ভক্তরা৷

আরও পড়ুন- বল বয়কে ‘হাগ’ করে ‘দিল’ জিতলেন শামি

‘শামি তোমাকে ঘৃণা করি’এমন কমেন্টও শুনতে হয় বঙ্গ পেসারকে৷ শুরুতে অন্যান্য বারের মতো সমালোচকদের মন্তব্যকে এড়িয়ে গিয়েছিলেন শামি৷ শেষটাই অবশ্য পারলেন না৷ বিতর্ক এড়াতেই নিজের টুইটটি শেষমেষ ডিলিট করেন দেশের এক নম্বর পেসার৷

আরও পড়ুন- ফেসবুকে স্ত্রী’র খোলামেলা ছবি! শামির কম্যান্টবক্সে কটূক্তির বন্যা

এর আগে ফেসবুক পেজে নিজের স্ত্রীয়ের ছবি পোস্ট করে বেশ সমস্যায় পড়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার তারকা পেসার মহম্মদ শামি৷ ছবিতে শামির স্ত্রীর পড়নে ছিল লালচে মেরুণ রঙের গ্রাউন৷ সেই ছবি পোস্ট করতে একের পর বিরূপ মন্তব্য আছড়ে পড়েছিল ফেসবুকে৷ অনেকের দাবী ছিল অন্যায় ভাবে স্ত্রী হাসিন জাহানের খোলামেলা পোষাক প্রকাশ্যে আনেন শামি৷ সেবার অবশ্য কটূক্তিতে পাত্তা না দিয়ে শামি বলেছিলেন, ‘কোনটা উচিৎ আর কোনটা নয়, সেটা কাউকে শিখিয়ে দিতে হবে না।’

অনেকেই শামিকে সেসময় অনুরোধ করেন, স্ত্রীকে হিজাব ছাড়া এমন পোশাকে প্রকাশ্যে আনা উচিত নয়। তবে সেবার এই মন্তব্যের প্রতিবাদেও সামিল হয়েছিল অন্য অনুরাগীরা। সমর্থনও ভেসে আসে। কেউ কেউ কমেন্ট বক্সে  লিখেছিলেন, ‘আমরা কোনও মধ্যপ্রাচ্যের দেশে বাস করি না, যে পোশাকবিধি মেনে চলতে হবে।’
এবার অবশ্য শিবলিঙ্গের ছবি প্রকাশের ঘটনায় প্রতিবাদী অনুরাগীদের পাশে পেলেন না শামি৷

আরও পড়ুন- শামির উদারতা আমাকে মুগ্ধ করে: হাসিন

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও