ম্যাঞ্চেস্টার: বিশ্বকাপে সুযোগ পেয়েই বাজিমাত করেছেন মহম্মদ শামি৷ দু’টি ম্যাচে তুলে নিয়েছেন ৮টি উইকেট৷ আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিক করে জিতিয়েছেন দলকে৷ কিন্তু বছর দেড়েক আগেও ভারতীয় এই পেসারের কেরিয়ারে নেমে এসেছিল ঘোর অন্ধকার৷ স্ত্রী হাসিন জাহানের আনা শারীরিক ও মানসিক অভিযোগে জেরবার ছিলেন শামি৷ সেখান থেকে বাইশ গজে স্বপ্নের ফর্মে ফিরে নিজেকে কৃতিত্ব দিচ্ছেন বাংলার এই ডানহাতি পেসার৷

ভুবনেশ্বর কুমারের চোট যেন ‘পয়া বারো’ হয়েছে টিম ইন্ডিয়ার৷ শামির প্রত্যাবর্তনে আরও শক্তিশালী হয়েছে ‘মেন ইন ব্লু’র পেস আক্রমণ৷ বুমরাহ-শামির জোড়া ফলায় জেরবার প্রতিপক্ষের ব্যাটিং লাইন-আপ৷ আফগানিস্তানের পর ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানরা ভারতীয় এই পেস জুটির আত্মসমপর্ণ করে৷ ভারতের বিরুদ্ধে ২৬৯ রান তাড়া করতে গিয়ে শামি-বুমরাহের সামনে মাত্র ১৪৩ রানে গুটিয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ৷ ৬.২ ওভারে ১৬ রান দিয়ে শামি তুলে নিলেন ৪ উইকেট। আর ৬ ওভারে মাত্র ৯ রান দিয়ে ২ উইকেট বুমরাহের ঝুলিতে।

আফগান ম্যাচেও চার উইকেট তুলে নিয়ে ভারতকে জিতিয়েছিলেন শামি৷ ইনিংসের শেষ ওভারে হ্যাটট্রিক করে বিরাটের মুখে চওড়া হাসি এনে দেন বাংলার এই পেসার৷ আর বৃহস্পতিবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে মাত্র ১৬ রানে চার উইকেট নিয়ে ক্যারিবিয়ান ইনিংসের কোমড় ভেঙে দেন শামি৷ ১২৫ রানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ জেতার পর নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে শামি বলেন, ‘শেষ ১৮ মাস আমি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে গিয়েছি৷ এই ঘটনা আমাদের আরও মজবুত করেছে৷ সুতরাং আজকের এই সাফল্য আমারই কৃতিত্ব৷’

বিশ্বকাপের প্রথম দু’টি ম্যাচে নতুন বলে বুমরাহের বোলিং পার্টনার ছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার৷ কিন্তু পাকিস্তানের বিরুদ্ধে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন ভুবি৷ হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে দু’ম্যাচ মাঠে বাইরে চলে যান উত্তরপ্রদেশের এই সুইং বোলার৷ চোট সারলেও শামির দুরন্ত পারফরম্যান্স একাদশে ভুবির ফেরা বাধা হয়ে দাঁড়ায়৷

পারিবারিক সমস্যা ও ফিটনেস ইস্যুতে বিশ্বকাপ খেলায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল শামির৷ পারিবারিক সমস্যার কারণে শামির বাৎসরিক চুক্তিও সাময়িক বাতিল করেছিল বোর্ড৷ পরে তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পেয়ে ফের শামির চুক্তি বলবত হয়৷ কিন্তু ফিটনেস সমস্যায় টেস্ট ম্যাচ থেকেও বাদ পড়েছিলেন শামি৷ কিন্তু গত বছরের শেষে ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফরে বিরাটদের দলে ফের সুযোগ পান তিনি৷ সুযোগ কাজে লাগিয়ে বিশ্বকাপের দলে জায়গা করে নেন শামি৷

বিশ্বকাপেও সুযোগ পেয়ে স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন ঘটান শামি৷ দু’টি ম্যাচে ৮ উইকেট তুলে নেওয়া শামি বলেন, ‘সব কিছুর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের শক্তি জোগানোর জন্য ভগবানকে ধন্যবাদ৷ এখন আমার লক্ষ্য দেশের হয়ে ভালো খেলে যাওয়া৷’ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে কার্যত সেমিফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে টিম ইন্ডিয়া৷ বাকি তিন ম্যাচ থেকে এক পয়েন্ট পেলেই শেষ চারে জায়গা করে নেবে কোহলি অ্যান্ড কোং৷ বিরাটদের পরের ম্যাচ রবিবার বার্মিংহ্যামে আয়োজক ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে৷