নয়াদিল্লি: ৩৭০ ধারা বাতিল নিয়ে একদিকে যেমন অগণিত দেশবাসী মোদী সরকারের পাশে দাঁড়িয়েছে, তেমনই আবার বিরোধী পক্ষরা এই পদক্ষেপের বিরোধিতায় সরব হয়েছে৷ আর এই ধারা বাতিল এব কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল পাশ হয়ে যাওয়ার ঠিক দু’দিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৮টা নাগাদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন৷

মোদী বলেন, ‘জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষ অনেক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হত, যা তাদের উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল৷ এই ধারা বিলোপের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীর ও লাদাখে এক নতুন যুগ শুরু হল। এখন দেশের সব নাগরিকের দায়িত্ব ও অধিকার সমান৷’

তিনি আরও বলেন, ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এমন গতানুগতিকতা চলে আসে যাতে মনে হয়, সব কিছু যেমন চলছে তেমনই চলবে। আর্টিকল ৩৭০-এর ক্ষেত্রেও তাই হয়ে আসছিল, শুধু তাই নয়, আর্টিকল ৩৭০ ও ৩৫-এর জন্য আতঙ্কবাদ আর পরিবারবাদের রাজত্ব চলছিল কাশ্মীরে। আর কোনও লাভ হয়নি৷ আর্টিকল ৩৭০-এ সরে যাওয়ার পর নতুন ব্যবস্থায় অনেক তৎপরতার সঙ্গে কাজ হবে। কাশ্মীরের মানুষ নতুন আশা, স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যাবে’ বলে আশ্বাস দেন মোদী৷ এবং সেই সঙ্গে তিনি এদিন ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখবাসীর চিন্তা সমগ্র দেশের চিন্তা। জম্মু-কাশ্মীরে ঈদ পালনে যাতে কোনও সমস্যা না হয় সেই বিষয়টি সরকার নিশ্চিত করেছে৷’

মোদী আরও বলেন, ‘কাশ্মীর আমাদের দেশের মুকুট। এই অঞ্চল রক্ষা করতে বহু মানুষ বলিদান দিয়েছে৷ ৪২০০০ নির্দোষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। কাশ্মীরের মানুষের কোনও লাভ হয়নি। আমার বিশ্বাস, এই নতুন ব্যবস্থায় আমরা সবাই মিলে সন্ত্রাসবাদ থেকে কাশ্মীরকে মুক্ত করতে পারব৷’