কলকাতা: ফের রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। আগামী শনিবার ১৭ এপ্রিল রাজ্যে পঞ্চম দফার বিধানসভা নির্বাচন। সেদিনই রাজ্যে ভোটের প্রচারে আসছেন নমো। ওই দিন আসানসোল ও দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে নির্বাচনী সভা করবেন মোদী।

রাজ্যে গেরুয়া দলের হয়ে নির্বাচনী প্রচারে ঝড় তুলতে ফের আসছেন মোদী। শনিবার রাজ্যে জোড়া সভা নমোর। আসানসোল ও গঙ্গারামপুরে সভা প্রধানমন্ত্রীর। একুশের ভোট প্রেস্টিজ ফাইট। বাংলা দখলে মরিয়া পদ্ম ব্রিগে। নির্বাচনী ময়দানে শাসকদল তৃণমূলকে এক ইঞ্চিও জমি ছাড়ছে না বিজেপি। পালা করে রাজ্যে প্রচারে আসছেন মোদী-শাহ-নাড্ডারা। একুশের লড়াইয়ে বঙ্গে প্রচারে ঝড় তুলেছেন বিজেপির এই ত্রয়ী। এরই পাশাপাশি প্রচারে আসছেন যোগী আদিত্যনাথ থেকে শুরু করে রাজনাথ সিং, স্মৃতি ইরানি-সহ বিজেপির একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা-মন্ত্রী। শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে পাহাড়-প্রমাণ অভিযোগ নিয়ে ভোটের ময়দানে বিজেপি। রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারে এসে শাসকদলের পাশাপাশি তৃণমূল সুপ্রিমোকেও নিশানা করছেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে রাজ্যের উন্নয়নের গতি স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ বিজেপির।

একুশের নির্বাচনে দু’শোর বেশি আসন নিয়ে বাংলায় ক্ষমতায় আসবে বিজেপি, প্রত্যয়ী অমিত শাহ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও রাজ্যে প্রচারে এসে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে বিজেপির জয় নিয়ে দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে প্রত্যাশার পারদ তুঙ্গে তুলছেন। সব মিলিয়ে বাংলার ভোটের ময়দান সরগরম। একদিকে ‘উন্নয়ন’কে হাতিয়ার করে রাজ্যে ক্ষমতা ধরে রাখতে সচেষ্ট তৃণমূল। অন্যদিকে শাসকদলের বিরুদ্ধে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ভোট ময়দানে বিজেপি। পিছিয়ে নেই বাম-কংগ্রেসও। আব্বাস সিদ্দিকীর দল ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট (Indian Secular Front)-কে সঙ্গে নিয়ে বিজেপি-তৃণমূলকে কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছে সংযুক্ত মোর্চা।

সোনার বাংলা গড়ার ডাক দিয়েছেন মোদী-শাহ-নাড্ডারা। সেই লক্ষ্যেই রাজ্যে প্রচারে এসে ঝড় তুলছেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা। বাংলার ভোট এবার আট দফায়। ইতিমধ্যেই রাজ্যে চার দফার নির্বাচন শেষ হয়েছে। পঞ্চম দফায় আগামী ১৭ এপ্রিল রাজ্যের ৪৫টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। ষষ্ঠ দফায় ভোট হবে ২২ এপ্রিল। সপ্তম দফায় ভোট গ্রহণ হবে ২৬ এপ্রিল ও অষ্টম তথা শেষ দফায় ভোটগ্রহণ আগামী ২৯ এপ্রিল। বাংলা-সহ পাঁচ রাজ্যেই ভোট গণনা ২ মে। পঞ্চম দফার বোটের দিনেই রাজ্যের দুই জায়গায় সভা করবেন নমো। আসানসোলের পাশাপাশি দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে নির্বাচনী সভা সারবেন প্রধানমন্ত্রী।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.