ফাইল ছবি৷

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পরীক্ষা শেষ হলেই রাজ্যে আসবেন মোদী৷ রাজ্যে মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষাপর্ব শেষ হবে মার্চ মাসের তৃতীয় সপ্তাহে৷ তার পরেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজ্যে সভা করতে আসবেন৷ ততদিনে অবশ্য মোদীর পরীক্ষাসূচী প্রকাশ করে ফেলবে নির্বাচন কমিশন, অন্তত এমন সম্ভাবনাই রয়েছে৷

রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ বুধবার বলেন, ‘‘ব্রিগেড হবেই৷ রাজ্যে পরীক্ষা চলছে৷ তার পরেই হবে৷ ব্রিগেডে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভা হবে৷’’ফেব্রুয়ারিতে রাজ্যে দু’বার এসেছেন প্রধানমন্ত্রী৷ ফেব্রুয়ারির ২ তারিখ উত্তর ২৪ পরগণার ঠাকুরনগর এবং পশ্চিম বর্ধমানের দূর্গাপুরে সবা করেছেন৷ আবার ফেব্রুয়ারির ৮ তারিখ সভা করেছেন জলপাইগুড়ির চূড়াভাণ্ডারে৷ প্রত্যাশিত ভাবেই মোদী সভামঞ্চ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘টার্গেড’করেছেন৷

সারা ফেব্রুয়ারি মাসেই মোদী উত্তরপ্রদেশে ব্যস্ত থাকবেন৷ বলে রাখা প্রয়োজন, ফেব্রুয়ারি মাসে ইতিমধ্যেই ৬ বার উত্তরপ্রদেশে গিয়েছেন মোদী৷ লোকসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে উত্তরপ্রদেশে অনাগোনা বাড়ছে প্রধানমন্ত্রীর৷ শোনা যাচ্ছে, রাহুল গান্ধীর কেন্দ্র আমেথিতেও সভা করবেন মোদী৷ উত্তরপ্রদেশে এসপি-বিএসপি-আরএলডি জোট বিজেপির বিরুদ্ধে ময়দানে নেমে পড়েছে৷ কংগ্রেস প্রিয়ঙ্কা গান্ধীকে রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক করে লড়াইয়ের ময়দানে ফিরে আসতে চলেছে৷

এই অবস্থায় ২৪ ফেব্রুয়ারি গোরখপুরে সভা করবেন মোদী৷ সেখানে প্রধানমন্ত্রী কিষাণ নিধি প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন৷ মনে রাখা প্রয়োজন লোকসভা উপনির্বাচনে গোরখপুরে কিছপদিন আগেই হার হয়েছিল বিজেপি৷ এসপি-বিএসপি’র জোট জিতে ক্ষমতার প্রমাণ দেয় সেখানে৷ গোরখপুরে যাওয়ার আগেই ফেব্রুয়ারির ১৯ তারিখ মোদী নিজের কেন্দ্র বারানসীতে সভা করবেন৷ উপলক্ষ গুরু রবিদাস জয়ন্তী৷ ২৭ ফেব্রুয়ারি কানপুরে উত্তরপ্রদেশ ইনভেস্টর সামিটে বক্তব্য রাখবেন মোদী৷ ফেব্রুয়ারির ১৫ তারিখ ঝাঁসি প্রতিরক্ষা প্রকল্প, ২৮ তারিখ আমেথিতে সভা করবেন প্রধানমন্ত্রী৷

রাজ্য বিজেপির অন্দরের যা খবর, কলকাতায় মোদীর সভা হিসেবে শুধু ব্রিগেডই নয়, শহরের বুকে আরও সভা চাইছে বঙ্গ বিজেপিও৷ শহরের কোনও বড় ময়দান বা পার্ককে সভার স্থান হিসেবে চায় বিজেপি৷ সেক্ষেত্রে রাজ্য সরকার ইচ্ছা থাকলেও মোদীর সভায় বাধার সৃষ্টি করতে পারবে না কারণ সেই সময় প্রশাসন থাকবে নির্বাচন কমিশনের হাতে৷