নয়াদিল্লি: শুরু হল নরেন্দ্র মোদীর দ্বিতীয় ইনিংস। বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি ভবনে কয়েক হাজার অতিথির সামনে প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন তিনি। রাইসিনা হিলসে এদিন চাঁদের হাট। বিদেশি নেতা থেকে শুরু করে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিশিষ্ট ব্যাক্তিত্ব দের আমন্ত্রন জানানো হয়েছে। ঠিক সন্ধ্যা ৭টায় শপথ বাক্য পাঠ করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কবিন্দ।

বিমস্টেক লিডারদের মধ্যে এদিন উপস্থিত আছেন বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট আব্দুল হামিদ, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মৈত্রিপালা সিরিসেনা, মায়ানমারের প্রেসিডেন্ট ইউ উইন ময়িন্ত, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি ও ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং। রাষ্ট্রপতি ভবনের ইতিহাসে এটাই সবথেকে বড় অনুষ্ঠান। অতিথিদের পরিবেশন করা হবে ‘হাই-টি’ আর নৈশভোজের আতিথ্য করবেন স্বয়ং রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

উল্লেখ্য, এদিন মোদীর সঙ্গেি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসাবে শপথ নিলেন ৫৭ জন বিজেপি সাংসদ। যাদের মধ্যে সবথেকে কম বয়সি কেন্দ্রীয়মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। সবথেকে বেশি বয়সের মন্ত্রী হলেন রাম বিলাশ পাসোয়ান। মোদীর মন্ত্রিসভায় মোট ১৯ জন নতুন মুখ। স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত হিসাবে কাজ করবে ৯ জন। প্রতিমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিলেন ২৪ জন। মন্ত্রসভায় মহিলা সদস্য ৭। সবথেকে উত্তরপ্রদেশ থেকে বেশি কেন্দ্রীয়মন্ত্রী হিসাবে সাংসদ বেছে নেওয়া হয়েছে। ৮ জনকে বেছে নেওয়া হয়েছে সেখান থেকে।  ২ জন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী পেল বাংলা। একজন আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় এবং রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী।