রাঁচি: একদিকে দেশে চতুর্থ দফায় ভোটগ্রহণ পর্ব চলছে তো অন্যদিকে আসন্ন অন্যান্য দফাকে মাথায় রেখে কোমরবেঁধে চলছে নির্বাচনী প্রচারও৷ সোমবার ঝাড়খন্ডের কোডারমাতে নির্বাচনী সভায় তিনি বলেন, তিন দফাতেই বিরোধীরা ভয় পেয়ে গিয়েছে৷ এই বিরোধীদের কথার ফাঁদে যাতে জনগণ না পড়ে সেই বিষয়েও তিনি সকলকে সতর্ক করলেন৷

তিনি বলেন, ‘বিরোধীরা বলছে মোদী মোদী জিতছে তাই ভোট দেওয়ার আর প্রয়োজন নেই৷ কিন্তু আপনারা বিরোধীদের কথা শুনবেন না৷ যদি মোদী জিতছে তাহলে ভোট দিন এবং বেশি সংখ্যায় জেতান৷’

ফাইল ছবি

মোদী এও বলেন, ‘প্রতিটি জায়গাতে পদ্মফুল ফুটতে হবে, তাই ভোট দিন প্রত্যেকে৷ আমাদের সরকার দুর্নীতিগ্রস্তদের চেপে ধরায় তারা বলছে চৌকিদার চোর৷’ তাঁর মতে, ‘বিরোধীরা হচ্ছে মহামিলাওয়াটির সরকার, তারা জোট বাঁধতে চায় যাতে খিচুড়ি সরকার করে দুর্নীতি চালিয়ে যেতে পারে৷’ জনসভায় মোদী আরও বলেন, ‘দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য মজবুত সরকার প্রয়োজন৷ কিন্তু খিচুড়ি সরকার দেশকে পিছনে নিয়ে যাচ্ছে৷’

কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামীর বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘বিরোধীরা সেনা-জওয়ানদের অপমান করছে৷ কংগ্রেসও এখন সেনাকে গুণ্ডা বলছে৷ এমতাবস্থায় আমাদের সতর্ক থাকতে হবে৷ আজ চৌকিদার দুর্নীতিগ্রস্ত এবং সন্ত্রাসবাদীদের শাস্তি দিচ্ছে৷ যেখানে ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে সেখানেই আমরা ঢুকে আঘাত হানব৷ ‘

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও