নয়াদিল্লি: করোনার ধাক্কা সামলে ধীরে ধীরে দেশের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে এমনই মন্তব্য করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একইসঙ্গে উৎসবের মরশুমে দেশবাসীকে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে আরও বেশি সতর্ক থাকতে পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশজুড়ে শুরু উৎসবের মরশুম। একইসঙ্গে দেশে করোনা এখনও তাণ্ডব চালাচ্ছে। এই আবহে উৎসবের মরুশুমের শুরুতেই দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী। করোনার সংক্রমণ রুখতে দেশবাসীকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি করোনার ধাক্কা সামলে দেশের অর্থনীতিও ধীরে ধীরে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বলে এদিন মন্তব্য করেছেন মোদী।

তিনি বলেন, ‘‘উৎসবের মরশুমে বাজারে ধীরে ধীরে পুরনো ছবি ফিরছে। ধীরে-ধীরে দোকান, বাজার ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। করোনার ধাক্কা সামলে ধীরে ধীরে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে৷ তবে আমাদের ভুললে চলবে না, লকডাউউন গেলেও ভাইরাস যায়নি।’’

গোটা বিশ্ব করোনার গ্রাসে৷ ভাইরাসের ভয়ঙ্কর প্রভাব ভারতেও৷ দেশে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ব্যবসা-বাণিজ্য। একানা কয়েকমাস ধরে বন্ধ ছিল দোকান-বাজার। তবে আনলক পর্যায়ের শুরু থেকে ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে ব্য়বসায়িক কার্যকলাপ। প্রধানমন্ত্রীর দাবি, করোনার ধাক্কা সামলে ধীরে ধীরে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে।

গোটা দেশে করোনার সংক্রমণ এখনও বিপজ্জনক রূপেই রয়েছে। বিন্দুমাত্র গাফিলতির ফলও মারাত্মক হতে পারে বলে এদিন সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ভাষণে তিনি বলেন, ‘‘করোনাভাইরাস এখনও আছে, এটা মনে রাখতে হবে। করোনার ভয় নেই, এটা ভাবলে চলবে না।

লকডাউউন গেলেও ভাইরাস যায়নি। করোনা আছে, এটা মনে রাখুন।’’ এদিন আবারও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে মাস্ক পরার ব্যাপারে সচতনতার বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলন, ‘‘মাস্ক ছাড়া বাইরে বেরোচ্ছেন মানে আপনি আপনার গোটা পরিবারকে বিপদে ফেলছেন।’’

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।